February 6, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, January 13th, 2023, 8:24 pm

ফাইনালে মুখোমুখি রিয়াল-বার্সা

অনলাইন ডেস্ক :

রুদ্ধশ্বাস লড়াই শেষে যখন টাইব্রেকারের সময় এলো, রিয়াল বেতিসের সবাইকে দেখা গেল হাসিখুশি, নির্ভার। বার্সেলোনার সবার মুখে চিন্তার ছাপ স্পষ্ট। কিন্তু দুর্দান্ত নৈপুণ্যে চিত্রটা পাল্টে দিলেন মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। টাইব্রেকারে দুটি শট ঠেকিয়ে গড়ে দিলেন ব্যবধান। বার্সেলোনাকে ফাইনালে নিয়ে গেলেন জার্মান গোলরক্ষক। কিং ফাহাদ ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে স্প্যানিশ সুপার কাপের দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে নির্ধারিত সময়ে ১-১ ও অতিরিক্ত সময় ২-২ সমতায় শেষ হয়। টাইব্রেকারে টের স্টেগেনের বীরত্বে ৪-২ গোলে জিতে ফাইনালে যায় বার্সেলোনা। আগামীকাল রোববার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে তারা মুখোমুখি হবে রিয়াল মাদ্রিদের। আগের দিন ভালেন্সিয়াকে তারাও হারিয়েছে টাইব্রেকারে। কোপা দেল রের গত আসরের চ্যাম্পিয়ন বেতিসের প্রথম দুটি শটে গোল করেন উইলিয়ান জোসে ও লরেন মোরন। হুয়ানমি ও উইলিয়াম কারভালিয়োর শট দুটি ঠিক দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন টের স্টেগেন। বার্সেলোনার হয়ে প্রথম তিন শটে গোল করেন রবের্ত লেভানদোভস্কি, ফঁক কেসিয়ে ও আনসু ফাতি। পরের শটে পেদ্রি জালের দেখা পেতেই নিশ্চিত হয়ে ফাইনাল। শেষটার মতো বার্সেলোনার শুরুটাও ছিল ঝলমলে। দ্বিতীয় মিনিটেই প্রথম সুযোগ তৈরি করেন রাফিনিয়া। তবে তার চমৎকার ক্রসে পা ছোঁয়াতে পারেননি কোনো সতীর্থ। দশম মিনিটে ডান দিক থেকে রাফিনিয়ার কাট ব্যাক ছেড়ে দেন গাভি, ডি বক্সে সুযোগ পেয়ে যান লেভানদোভস্কি। কিন্তু ঠিক মতো শট করতে পারেননি পোলিশ স্ট্রাইকার। পরের মিনিটে একই জায়গায় বাঁ দিক থেকে তাকে খুঁজে নেন উসমান দেম্বেল। এবারও বল নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেননি লেভানদোভস্কি। খেলার ধারার বিপরীতে ২২তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারত বেতিস। জুল কুন্দের দুর্বল ব্যাক পাস ডি বক্সের কাছাকাছি জায়গায় পেয়ে যান নাবিল ফেকির। ছুটে এসে বিপদমুক্ত করার চেষ্টায় বলের নাগাল পাননি মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। ফাঁকা জালে ফেকির শট নেওয়ার আগে দুর্দান্ত এক ট্যাকলে দলকে রক্ষা করেন রোনাল্দ আরাউহো। দুই মিনিট পর রাফিনিয়ার কাছ থেকে বল পেয়ে জালে খুঁজে নেন পেদ্রি। তবে তিনি নিজেই অফসাইডে থাকায় মেলেনি গোল। লম্বা সময় ধরে রক্ষণ সামলাতে ব্যস্ত থাকা বেতিস ৩২তম মিনিটে পায় দারুণ সুযোগ। ফেকিরের কর্নারে আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার হেরমান পেস্সেইয়ার হেড কোনোমতে ঠেকান টের স্টেগেন। তিন মিনিট পর দুর্দান্ত স্লাইডে বেতিসের নিশ্চিত গোলের সুযোগ ব্যর্থ করে দেন সের্হিও রবের্তো। ৪০তম মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। বাঁদিক থেকে রবের্তোর উঁচু করা বাড়ানো দল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আইতর রুইবালকে কাটিয়ে এগিয়ে যান দেম্বলে। আরেকটু এগিয়ে ডি বক্সে খুঁজে নেন লেভানদোভস্কিকে। তার প্রথম শট স্লাইড করে ঠেকান লুইস ফেলিপে। ফিরতি শটে জাল খুঁজে নেন পোল্যান্ড অধিনায়ক। ৪৫তম মিনিটে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে দুটি শট ঠেকিয়ে বার্সেলোনাকে এগিয়ে রাখেন গোলরক্ষক টের স্টেগেন। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ হাতছাড়া করে বার্সেলোনা। জর্দি আলবার ক্রসে ঠিক মতো শট নিতে পারেননি লেভানদোভস্কি। অন্য দুই সতীর্থও একটুর জন্য ছোঁয়াতে পারেননি পা। আক্রমণাত্মক ফুটবলে বার্সেলোনাকে চেপে ধরার চেষ্টা করে বেতিস। জমে ওঠে ম্যাচ। প্রতি আক্রমণে ৫৮তম মিনিটে গোল হজম করতে বসেছিল বেতিস। ডি বক্সের বাইরে ছুটে এসে ক্লিয়ার করেন ব্রাভো। চার মিনিট পর দেম্বেলের বুলেট গতির শট যায় কাছের পোস্ট ঘেঁষে। ৭৫তম মিনিটে আবার বেতিসের ত্রাতা ব্রাভো। রাফিনিয়ার ক্রস যাচ্ছিল অরক্ষিত ফেররান তরেসের দিকে। কোনোমতে হাত ছুঁয়ে দিক পাল্টে দেন অভিজ্ঞ গোলরক্ষক। দুই মিনিট পর সমতা ফেরায় বেতিস। লুইস হেনরিকের কাছ থেকে বল পেয়ে টের স্টেগেনকে পরাস্ত করে জাল খুঁজে নেন ফেকির। ৮১তম মিনিটে জালে বল পাঠান লেভানদোভস্কি। তবে তাকে বল দেওয়া তরেস অফসাইডে থাকায় মেলেনি গোল। তিন মিনিট পর দুর্দান্ত সেভে বার্সেলোনাকে পিছিয়ে যেতে দেননি টের স্টেগেন। যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে সুবর্ণ সুযোগ পেয়ে গিয়েছিলেন ফাতি। কিন্তু আরেকটি অসাধারণ সেভে বার্সেলোনাকে হতাশায় ডোবান কাতালান ক্লাবটির সাবেক গোলরক্ষক ব্রাভো। ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। ৯৩তম মিনিটে বার্সেলোনাকে এগিয়ে নেন ফাতি। মার্কোস আলোনসোর ফ্রি কিকে বেতিসের একজনের হেডে ডি বক্সের কোণায় বল পেয়ে যান তরুণ ফরোয়ার্ড। বুলেট গতির ভলিতে জটলার মধ্য দিয়ে জাল খুঁজে নেন তিনি। ১০১তম মিনিটে সমতা ফেরায় বেতিস। হেনরিকের কাছ থেকে বল পেয়ে দুর্দান্ত ব্যাক হিলে দর্শনীয় গোল করেন লরেন মোরন। ১১৭তম মিনিটে তরেসের বাড়ানো বলে জালের দেখা প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন ফাতি। ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন ব্রাভো। পরের মিনিটে আন্দ্রেয়াস গুয়ারদাদো দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে ১০ জনের পরিণত হয় বেতিস। বাকি সময়ে এই সুবিধা নিতে পারেনি বার্সেলোনা। ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে দারুণ বীরত্ব দেখিয়ে নায়ক টের স্টেগেন। তার দৃঢ়তায় রোববার মাঠে গড়াবে ‘এল ক্লাসিকো।’