July 24, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, July 18th, 2023, 8:48 pm

ফেনীতে বিএনপি,আ’লীগ ও পুলিশের ত্রিমুখি সংঘর্ষ- আহত শতাধিক

জেলা প্রতিনিধি, ফেনী:

ফেনীতে বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে পুলিশ, বিএনপি ও আ’লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে পুলিশ, সাংবাদিকহ উভয়দলের প্রায় শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকাল ৪টার দিকে বিএনপির পদযাত্রা শেষে শহরের ইসলামপুর রোডের মাথায় সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।
জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগের দাবিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ফেনী জেলা বিএনপির আয়োজনে ফেনী জেলা শহরের দাউদপুর ব্রিজ সংলগ্ন স্থান থেকে পদযাত্রা শুরু করেন।
পদযাত্রা ইসলামপুর রোড়ে পৌঁছালে পুলিশ বাঁধা প্রদান করলে বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধস্তাধস্তা হয়। একপর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এবং পুলিশের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ অন্তত ২০-৩০ রাউন্ড গুলি ও কাঁদানি গ্যাস ছোড়ে।

অপরদিকে,ফেনী জেলা আ’লীগের আয়োজনে শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশ চলছিল শহরের কলেজ রোড়ে। সেখান থেকে তারা মিছিল নিয়ে ট্রাংক রোড়স্ত প্রেসক্লাবের সামনে পৌঁছালে আ’লীগের মিছিলকে লক্ষ্য করে ককটেল ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে বিএনপির নেতাকর্মীরা এতে ফেনী জেলা যুবলীগ সভাপতি দিদারুল কবির রতনসহ প্রায় ১৫/২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।ফেনী জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আলাল উদ্দিন আলাল বলেন, পদযাত্রা নিয়ে ইসলামপুর এলাকায় যাওয়ার পর হঠাৎ করে তাদের ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে দূর্বৃত্তরা। এ সময় নেতাকর্মীরাও ক্ষেপে ওঠেন। সংঘর্ষ বেঁধে যায়। তার দাবী সংঘর্ষে তাদের দুই শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

ফেনী জোলা যুবলীগ সভাপতি দিদারুল কবির রতন বলেন, অশান্ত ফেনীকে শান্তির জনপদে পরিণত করেছেন ফেনী জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি। কিন্তু আজ বিএনপি তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের মাধ্যমে আবার ফেনীকে অশান্ত করতে চায়। আগামীতে বিএনপির এসব সন্ত্রাসী কোন কার্যক্রম ফেনীতে হতে দেয়া হবেনা। তাদের শক্ত হাতে প্রতিহত করা হবে।

পুলিশ সুপার জাকির হাসান বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ নিরাপত্তার জন্য ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এ সময় আমাদের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন।