October 4, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, December 7th, 2021, 8:41 pm

ফেনীর দাগনভূঞায় আ.লীগের ৫ চেয়ারম্যান বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

ফাইল ছবি

জেলা প্রতিনিধি, ফেনী :

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলায় ৫ ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) আওয়ামী লীগের (নৌকা প্রতিক) ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী থাকায় মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন তাদের বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন, উপজেলার সিন্দুরপুর ইউনিয়নের নুর নবী, রাজাপুর ইউনিয়নে জয়নাল আবেদীন মামুন, পূর্বচন্দ্রপুর ইউনিয়নে মাসুদ রায়হান, ইয়াকুবপুর ইউনিয়নে আবুল ফোরকান বুলবুল ও মাতুভূঞা ইউনিয়নে আব্দুল্লাহ আল মামুন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৬ টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ২৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। যাচাই-বাচাই ও আপিল শেষে ১৯ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। ৬ ডিসেম্বর প্রত্যাহারের শেষ দিন ৬ ইউনিয়নের মধ্যে ৫ ইউনিয়নের অন্য প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। ৭ ডিসেম্বর প্রতিক বরাদ্ধের দিন ওই ৫ টি ইউনিয়নে আ.লীগ মনোনীত (নৌকা প্রতিক) প্রার্থীদের একক প্রার্থী হিসেবে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন। এতে ওই ৫ ইউনিয়নে মেম্বার পদে এবং অত্র উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে শুধু জায়লস্কর ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। জায়লস্কর ইউনিয়নে আ.লীগ মনোনীত (নৌকা প্রতিক) প্রার্থীর সাথে স্বতন্ত্র (আনারস প্রতিক) প্রার্থী রফিকুল ইসলাম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া ৬ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে, ২৮১ জন এবং সংরক্ষিত (মহিলা) সদস্য পদে ৪৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আগামী ২৬ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

রাজাপুর ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রার্থী দাগনভূঞা উপজেলা আ.লীগ সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন মামুন বলেন, ‘বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি আমার কাম্য নয়। প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাধ্যমে জয়ী হওয়ার মধ্যে আত্মতৃপ্তির বিষয় জড়িত। আমি চেয়েছি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক একটা নির্বাচন হবে কিন্তু আমার ইউনিয়নে আরো ৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন, জমাও দেন। কিন্তু মনোনয়নপত্রে ত্রুটি থাকায় যাচাই-বাচাইয়ের দিন নির্বাচন কমিশন তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন। তারা আপিল করলেও তা খারিজ করে দেয় কমিশন। একারনে আমি একক প্রার্থী হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হই। তবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলে আমি বিপুল ভোটে বিজয়ী হতাম। কারণ, ইউনিয়নের আমার অসংখ্য সমর্থক ও কর্মী রয়েছেন এবং ইউনিয়নের মানুষ আমাকে ভালোবাসেন।

দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. কামটল হোসেন বলেন, তাদের ৫ চেয়ারম্যান প্রার্থীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হলেও নির্বাচনি তফসিল অনুয়ায়ী ভোট শেষে অন্যদের সঙ্গে তাদের গেজেট প্রকাশ করা হবে।