May 28, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, April 24th, 2022, 8:56 pm

বরিশালে তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিমন্ত্রী ও মেয়র গ্রুপ’র পাল্টাপাল্টি সড়ক অবরোধ

জেলা প্রতিনিধি, বরিশাল :

সহকর্মীকে মারধরের অভিযোগ এনে ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিপ্লবের বিচার দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) একদল কর্মচারী। রোববার বেলা ৩টা থেকে নগরীর বিএম কলেজ রোডস্থ সেই কাউন্সিলর অফিসের সামনের সড়ক অবরোধ করেন তারা। তাদের অভিযোগ, ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান বিপ্লব সিটি করপোরেশনের সড়ক পরিদর্শক রাজিব খানকে মারধর করেছেন। অপরদিকে এ অবরোধ চলমান থাকতেই কাউন্সিলর বিপ্লবের সমর্থক ও অনুসারীরা ২০ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাধীন সিঅ্যান্ডবি রোডের সোমালয় ভবনের সামনে পাল্টা অবরোধ করেন। এসময় মেয়রবিরোধী হিসেবে পরিচিত আরও ৯ কাউন্সিলর তাদের সমর্থকদের নিয়ে ওই বিক্ষোভে যোগ দেন। ফলে ঢাকা-কুয়াকাটা মহাসড়কে যানবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

আর দুই পক্ষের এই পাল্টাপাল্টি অবরোধের কারণে গোটা নগরীতে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। সুশীল সমাজ বলছেন, স্থানীয় রাজনীতিতে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুকের ও মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ গ্রুপ’র দ্বন্ধ থাকায় তুচ্ছ ঘটনাটি রসদ জোগাচ্ছে পক্ষ বিপক্ষের বিরুদ্ধে সড়ক অবরোধের কর্মসূচী। জানাগেছে কাউন্সিলর বিপ্লব প্রতিমন্ত্রী গ্রুপের। সরেজমিনে দেখা যায়, বিএম কলেজে রোডে ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয়ের সামনে শতাধিক পরিচ্ছন্নতাকর্মী সড়ক অবরোধ করে কাউন্সিলর বিপ্লবের বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছেন। অপরদিকে কাউন্সিলর বিপ্লবের সমর্থকেরা টায়ার জ্বালিয়ে সিঅ্যান্ডবি সড়কে যানবহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান বিপ্লব জানান, কলেজ শিক্ষক কামরুজ্জামান তার বাড়িতে ভবন নির্মাণের কাজ করছেন। কাজ শুরুর পর থেকে সিটি করপোরেশর কর্মচারী পরিচয় দিয়ে প্রায়ই একদল যুবক ওই বাড়িতে হানা দেয় এবং নির্মাণকাজে নানা ত্রুটি দেখিয়ে শিক্ষকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে আসছে। এরই মধ্যে কলেজ শিক্ষকের কাছ থেকে অর্ধ লক্ষাধিক টাকা নিয়েছে ওই যুবকরা। কাউন্সিলর বিপ্লবের অভিযোগ, ওই যুবকরা সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহর নিয়োগ দেয়া অস্থায়ী কর্মচারী। তারা নগরের সর্বত্র নির্মাণাধীন বাড়ির মালিকদের কাছ থেকে উৎকোচ আদায় করে থাকেন।

বিপ্লব জানান, তার ওয়ার্ডের একজন নিরীহ শিক্ষককে এভাবে হয়রানি করায় তিনি প্রতিবাদ করেন। বিষয়টি অজুহাত হিসেবে তুলে মেয়রের ইন্ধনে রোববার বেলা ৩টার দিকে ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ের সামনে এসে তার বিরুদ্ধে অশ্লীল ভাষায বিক্ষোভ শুরু করেন সিটি করপোরেশনের কতিপয় কর্মচারী। তারা বিএম কলেজ সংলগ্ন ব্যস্ততম সড়কটিতে যানবহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। এদিকে সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা স্বপন কুমার রোহান জানান, সিটি করপোরেশনের সড়ক পরিদর্শক রাজিব খানকে ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কক্ষের মধ্যে আটকে মারধর করেছেন কাউন্সিলর বিপ্লব। এর আগেও তিনি বিসিসির আরেক কর্মচারীকে মারধর করেছেন। এর প্রতিবাদে বিসিসির কর্মচারীরা রোবাবার দুপুরে ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেছেন । গোরাস্থান রোডের বাসিন্দা কলেজশিক্ষক মো. কামরুজ্জামান জানান, তিনি নিয়ম মেনে নকশা অনুযায়ী বাড়িটি নির্মাণ করছেন। কিন্তু প্রায়ই একদল যুবক এসে সেখানে হানা দেয় এবং নানাভাবে হয়রানি করে আসছে। গত ২১ মার্চ ওই যুবকরা তার স্ত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। এসময় কাউন্সিলর বিপ্লব ঘটনাস্থলে এসে প্রতিবাদ করেন এবং তার ওয়ার্ডে কাউকে হয়রানি না করার জন্য যুবকদের সাবধান করে দেন। কোতোয়ালী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) লোকমান হোসেন বলেন, দুইপক্ষ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে। উভয় জায়গায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে চেষ্টা চলছে।