November 27, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, June 18th, 2021, 8:45 pm

বাইডেন-ট্রুডোর চেয়েও জনপ্রিয় রাষ্ট্রনেতা মোদি!

অনলাইন ডেস্ক :

করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে গিয়ে মহাসংকটে পড়েছে ভারত সরকার। এর জেরে জনপ্রিয়তায় ধস নেমেছে দেশটির টানা দুই মেয়াদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। বছর দুয়েক আগে ভারতীয়দের কাছে যে পরিমাণ গ্রহণযোগ্যতা ছিল তার, করোনার ধাক্কায় তা অনেকটাই পড়ে গেছে। এরপরও জো বাইডেন, জাস্টিন ট্রুডো, অ্যাঞ্জেলা মেরকেলের মতো বিশ্বনেতাদের চেয়ে জনপ্রিয়তার সূচকে এগিয়ে রয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। গত বৃহস্পতিবার মর্নিং কনসাল্ট নামে একটি বেসরকারি ডেটা ইন্টেলিজেন্স ফার্মের সবশেষ সমীক্ষায় এ তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, ভারতে এখনো ৬৬ শতাংশ মানুষ নরেন্দ্র মোদির ওপর আস্থাশীল। আর তার ওপর ভরসা নেই মাত্র ২৮ শতাংশ ভারতীয়র। দেশটিতে ২ হাজার ১২৬ প্রাপ্তবয়স্কের ওপর জরিপ চালিয়ে এ ফলাফল পাওয়া গেছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের খবর অনুসারে, বিশ্বের ১৩টি দেশে এধরনের জরিপ চালিয়েছে মর্নিং কনসাল্ট। এতে জনপ্রিয়তার দৌড়ে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ব্রাজিল, ফ্রান্সের মতো দেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের পেছনে ফেলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। গ্লোবাল অ্যাপ্রুভাল রেটিং ট্র্যাকার-এ মোদির ঠিক পরেই রয়েছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি। তার ওপর ভরসা দেখিয়েছে ইতালির ৬৫ শতাংশ মানুষ। এরপর রয়েছেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট অ্যান্দ্রেঁ ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর। তার ওপর আস্থা ৬৩ শতাংশ মানুষের। তৃতীয় অবস্থানে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। তার পক্ষে দেশটির ৫৪ শতাংশ মানুষ। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেলের ওপর ভরসা ৫৩ শতাংশ জার্মানের। একই অবস্থা মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনেরও। তালিকায় এরপরে রয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তার ওপর ভরসা রেখেছেন দেশটির ৪৮ শতাংশ মানুষ। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ওপর ভরসা রয়েছে ৪৪ শতাংশ ব্রিটিশ নাগরিকের। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জা ইনের ওপর ভরসা ৩৭ শতাংশের। এরপর তালিকায় পর্যায়ক্রমে রয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ (৩৬ শতাংশ), ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো (৩৫ শতাংশ), ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমান্যুয়েল ম্যাক্রোঁ (৩৫ শতাংশ) এবং জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদি সুগা (২৯ শতাংশ)। এর আগে, গত মে মাসে মর্নিং কনসাল্ট জানিয়েছিল, সেসময় নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তার সূচক ৬৩ শতাংশ নেমে গিয়েছিল, যা ২০১৯ সালের আগস্টের পর থেকে সর্বনিম্ন। বিশেষ করে গত এপ্রিলে মোদির জনপ্রিয়তায় সবচেয়ে বড় ধাক্কা লাগে। ওই মাসে ২২ পয়েন্ট পড়ে যায় তার জনপ্রিয়তা। এই হিসাবে গত কয়েক সপ্তাহে নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা সামান্য বেড়েছে।