July 16, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, June 13th, 2024, 8:30 pm

বিক্ষোভে উত্তাল আর্জেন্টিনা

অনলাইন ডেস্ক :

প্রেসিডেন্ট হাভিয়ার মিলেই সরকারের বাজেট কমানো ও সংস্কার পরিকল্পনায় ক্ষুব্ধ হয়ে রাস্তায় নেমেছেন আর্জেন্টাইনরা। রাজধানী বুয়েনস এইরেসে দেশটির পার্লামেন্ট কংগ্রেসের সামনে বিক্ষোভ করেছেন তারা। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, এই পদক্ষেপ পাস হলে লাখ লাখ আর্জেন্টাইনের ক্ষতি করবে। দাঙ্গা পুলিশ পার্লামেন্ট কংগ্রেসের বাইরে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস এবং জলকামান ছুড়েছে। বুধবার আর্জেন্টিনার কংগ্রেসে আইন প্রণেতারা বাজেট সংস্কারের প্রাথমিক অনুমোদন দেওয়ার আগে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় কংগ্রেস ভবনের বাইরে দুটি গাড়িতে আগুন দেন বিক্ষোভকারীরা। অনেকে বেড়া টপকে সেখানে ঢোকার চেষ্টা করলে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।

নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের ওপর পাথর ছুড়লে তারাও পেপার স্প্রে ছোড়েন, পেট্রলবোমা এবং পাথর ছোড়েন। স্থানীয় মিডিয়া বুধবার ঘটনাটিকে ‘যুদ্ধক্ষেত্র’ হিসেবে বর্ণনা করেছে এবং এতে বেশ কয়েকজন আহত হওয়ার খবর দিয়েছে। পর্যবেক্ষক এবং বিরোধী সংসদ সদস্যরা বলেছেন, বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারী এবং মুষ্টিমেয় কিছু এমপি চিকিৎসাসেবা পেয়েছেন। ভিড়ের মধ্যে অন্তত পাঁচজন বিরোধী সংসদ সদস্যকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে বিধায়ক সিসিলিয়া মোরেউ বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন। এ ঘটনায় অন্তত ২০ জন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এ ছাড়া নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছে, তারা ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। দেশটির পতাকাবাহী অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জাভিয়ের মিলেই কর্তৃক প্রস্তাবিত সংস্কার প্যাকেজের মধ্যে অর্থনৈতিক জরুরি অবস্থা ঘোষণা, পেনশন হ্রাস এবং শ্রম অধিকার হ্রাস করার কথা বলা হয়েছে। বামপন্থী রাজনৈতিক দল, শ্রমিক সংগঠন ও সামাজিক সংগঠনগুলো এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করছে। তবে প্রস্তাবটি প্রাথমিক ভোটে সিনেটে ৩৬-৩৬-এ টাই ছিল। কিন্তু সিনেটের প্রধান ভাইস প্রেসিডেন্ট ভিক্টোরিয়া ভিলারুল প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিলে সেটি প্রাথমিকভাবে বুধবার পাস হয়।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) ৩২৮-আর্টিকল বিলটির প্রতিটি পয়েন্ট ধরে ধরে জরিপ করা হবে। এরপর তা চূড়ান্তভাবে পাস হওয়ার জন্য নিম্নকক্ষে ফেরত যাবে। সিনেটে বিল পাসের আগে বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দেয়, ‘দেশ বিক্রির জন্য নয়, দেশ রক্ষার জন্য।’ অন্য একটি ব্যানারে লেখা ছিল, ‘একজন রাষ্ট্রপ্রধান কিভাবে রাষ্ট্রকে ঘৃণা করতে পারে?’ ৫৫ বছর বয়সী একজন প্রতিবাদী আইনজীবী ফ্যাবিও নুনেজকে উদ্ধৃত করে এএফপি জানিয়েছে, ‘আমরা বিশ্বাস করতে পারি না যে আর্জেন্টিনায় আমরা এমন একটি আইন নিয়ে আলোচনা করছি, যা আমাদের ১০০ বছর পিছিয়ে দেবে।’ সূত্র : বিবিসি