November 27, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, September 24th, 2021, 7:58 pm

বিচ্ছেদের পথেই হাঁটছেন সামান্থা

অনলাইন ডেস্ক :

নাগা চৈতন্যের সঙ্গে বিচ্ছেদ হতে যাচ্ছে আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী সামান্থা আক্কিনেনির। কয়েক দিন ধরে এমন গুঞ্জন বাতাসে ভাসছিল। গত আগস্টে নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল থেকে স্বামীর পদবি মুছে ফেলেন সামান্থা। এরপর থেকে এই দম্পতির বিচ্ছেদের গুঞ্জন আরও দৃঢ় হয়। এ দুই তারকার ভক্ত-অনুরাগীদের প্রার্থনা ছিল এটা যেন গুঞ্জনই থাকে। কারণ সাত বছর চুটিয়ে প্রেমের পরিণতি যে বিয়ে, তার বিচ্ছেদ মানতে নারাজ অনেকেই। কিউট কাপল হিসেবে দক্ষিণ ভারতে তাদের পরিচিতি রয়েছে। এ নিয়ে সামান্থা ও চৈতন্য দুজনের কেউ সরাসরি কিছু না বললেও ভারতীয় বিভিন্ন মিডিয়ার খবরÑ বিচ্ছেদের পথেই হাঁটছেন এ দুই দক্ষিণী সুপারস্টার। তাই প্রশ্ন উঠেছে কেন ভাঙছে সামান্থা ও চৈতন্যের সংসার? জানা গেছে, রুপালি পর্দায় সামান্থা যেভাবে হাজির হন তা মোটেও পছন্দ করছিলেন না স্বামী নাগা চৈতন্য ও তার বাবা নাগার্জুনা আক্কিনেনি। বেশ কিছু স্ক্রিনে সামান্থা খোলামেলা রূপে হাজির হয়েছেন বলে অভিযোগ চেতন্য পরিবারের। ‘ফ্যামেলিম্যান-টু’ ওয়েব সিরিজে খোলামেলা ও সাহসী চরিত্রে অভিনয় করেছেন সামান্থা, যা আক্কিনেনি পরিবার একেবারেই ভালোভাবে নেয়নি। তবে বিষয়টি মানতে নারাজ সামান্থা। এ নিয়ে বেশ কয়েক বার বাকবিতন্ডা হয়েছে স্বামী চৈতন্যের সঙ্গে। অবধারিতভাবেই দুজনের সম্পর্কে বড় রকমের ফাটল ধরেছে। টাইমস অব ইন্ডিয়াকে এ দুই তারকার একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র এমনটিই জানিয়েছেন। সেই সূত্রটি বলছে, বিবাহবিচ্ছেদের আবেদন করেছেন সামান্থা ও চৈতন্য। বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ফের এক হতে তাদের একাধিকবার তলব করেছেন আদালত। কিন্তু সিদ্ধান্তে অনঢ় তারা দুজনেই। আগামী দুই থেকে তিন মাসের মধ্যেই তাদের বিচ্ছেদের প্রক্রিয়াটি চূড়ান্ত হবে। তবে বিয়েবিচ্ছেদের গুঞ্জনের খবরের বিষয়ে এর আগে সামান্থা বলেছিলেন, ‘আমি গসিপ ও গুজবে তখনই সাড়া দেব, যখন আমার মনে হবে এটি দরকার। অন্য সবার মতো আমিও আমার মতামতের অধিকারী। বিতর্ক, গুজব চলবেই, আমি বিতর্কের মুখে মন হারিয়ে ফেলার মতো নারী নই। সোশ্যাল মিডিয়া ট্রল ও বিতর্ক আমাকে প্রভাবিত করে না। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর খবরÑ দুটি তামিল সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ সামান্থা। একটি বিজয় সেতুপতির সঙ্গে ‘কথু ভাকুলা রেন্দু কাধাল’, অপরটি ‘শকুন্তলম’, যেখানে পৌরাণিক চরিত্র শকুন্তলার ভূমিকায় দেখা যাবে সামান্থাকে।