February 9, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, December 19th, 2022, 2:41 pm

বিশ্বকাপের খেলা চলাকালে যুবককে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাত

জেলা প্রতিনিধি, পাবনা :

বিশ্বকাপের খেলা চলাকালে পাবনায় তুফান হেসেন (৩২) নামের এক যুবককে ছুরিকাঘাতে আহত করা হয়েছে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পূর্ব বিরোধের জেরে রোববার দিবাগত রাত পৌনে দশটার দিকে পাবনা পৌর সদরের কাশিপুর বটতলা নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। আহত তুফান কাশিপুর বটতলা এলাকার নাছিম হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, তুফনের সাথে আগের একটি মারামারির ঘটনা নিয়ে বিরোধ ছিল নাজিরপুর হাটপাড়া গ্রামের মৃত দুদু প্রামানিকের ছেলে নিশান, হেমায়েতপুর আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকার আজমত আলীর ছেলে রাজু হোসেন, কাশিপুর সাধু খাঁর বটতলা এলাকার দেলবার হোসেনের ছেলে রাশেদ সহ কয়েকজনের। রোববার রাতে কাশিপুর মোড়ে বড় পর্দায় বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা দেখছিলেন তারা সহ এলাকাবাসী।

খেলার এক ফাঁকে পূর্ববিরোধের সুত্র ধরে তুফানকে ডেকে একটু দূরে নিয়ে যায় রাশেদ, নিশান, রাজু সহ তার সহযোগিরা। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তুফানকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় তারা। তার চিৎকারে স্থানীয়রা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা। সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত তুফানের চাচা রমজান শেখ, স্থানীয় বাসিন্দা বকুল, টুটুল শাকিল সহ কয়েকজন জানান, নিশান ও তার সহযোগিরা এলাকায় মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজীর সাথে জড়িত। এ কাজে তাদের বাধা দিয়েছিল তুফান। এ ঘটনায় কিছুদিন আগে নিশানকে মারপিট করে তুফান সহ অন্যরা। সেই বিরোধের জের ধরে রোববার রাতে খেলার চলাকালে চিৎকার চেঁচামেচির এক ফাঁকে তুফানকে ডেকে নিয়ে পাশের দোকানের আড়ালে নিয়ে যায় নিশান, রাশেদ, সুইট, কালাম, রাজু, মাহিন। পরে তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় তারা। এ ঘটনার সাথে বিশ^কাপের খেলা নিয়ে কোনো বিরোধ হয়নি।

এ বিষয়ে পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, খবর পাওয়ার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে। হামলাকারীদের সনাক্ত ও তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। এখন পর্যন্ত আহতের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি।