August 9, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, June 26th, 2022, 7:48 pm

বিশ্বকাপে নিশ্চিত নন দি মারিয়া

অনলাইন ডেস্ক :

আর্জেন্টিনা দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের একজন আনহেল দি মারিয়া। সদ্য শেষ হওয়া মৌসুমে দারুণ ছন্দেও ছিলেন তিনি। তবুও কাতার বিশ্বকাপে দলে জায়গা পাওয়া নিয়ে নিশ্চিত নন এই মিডফিল্ডার। পিএসজিকে বিদায় জানানো এই তারকা মনে করেন, কেবল লিওনেল মেসি ছাড়া দলে বাকি সবার জায়গা অনিশ্চিত। বয়স ৩৪ হলেও ধার কমেনি দি মারিয়ার খেলায়। লিওনেল স্কালোনির দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ তিনি। দলটির রেকর্ড ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পথচলায় তার রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। গত বছর কোপা আমেরিকার ফাইনালে তার গোলেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েছিল দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। যেভাবে খেলছেন, তাতে বছরের শেষে হতে যাওয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলে দি মারিয়ার না থাকাটাই হবে বিস্ময়কর। জাতীয় দলে আপাতত জায়গা নিয়ে শঙ্কা না থাকলেও ক্লাব পর্যায়ে ভবিষ্যৎ গন্তব্য নিয়ে অনিশ্চয়তায় আছেন দি মারিয়া। ২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর এখন ক্লাবহীন তিনি। সংবাদমাধ্যমের খবর, এক বছরের চুক্তিতে তাকে দলে টানতে আগ্রহী ইটালিয়ান ক্লাব ইউভেন্তুস। টিএনটি স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রোববার দি মারিয়া তুলে ধরেন ক্লাব পরিবর্তনের সঙ্গে জাতীয় দলে জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তার বিষয়টি। তার মতে, দলে জায়গা ধরে রাখতে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে তাকে। “(কাতার বিশ্বকাপের দলে) একমাত্র লিওনেল মেসির জায়গা নিশ্চিত।” “এখন থেকে চার মাস পরে কী হবে, কেউ জানে না। আমাকে ক্লাব পরিবর্তন করতে হবে, সেখানে আবার মানিয়ে নিতে হবে, খেলতে হবে এবং ভালো অনুভব করতে হবে – যা পার্থক্য গড়ে দিতে পারে।” আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার তালিকায় দি মারিয়া আছেন চতুর্থ স্থানে (১২২)। তালিকায় তার আগে রয়েছেন মেসি (১৬২), হাভিয়ের মাসচেরানো (১৪৭) ও হাভিয়ের জানেত্তি (১৪৫)। ২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩১টি ম্যাচ খেলেছেন দি মারিয়া। ৫টি গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন ৮টি। গুঞ্জন রয়েছে, ইউভেন্তুসের পাশাপাশি দি মারিয়াকে দলে টানতে চেষ্টা করছে বার্সেলোনাও। বর্তমানে ছুটিতে থাকা সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা অবশ্য এই মুহুর্তে সেসব নিয়ে ভাবছেন না। “ইউভেন্তুস ইতালির সবচেয়ে বড় ক্লাব এবং আমার প্রতি আগ্রহী দলগুলোর একটি। এই মুহূর্তে আমি এটা নিয়ে একটু চিন্তা করছি, তবে এখন আমার পূর্ণ মনোযোগ পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটানো।” “বার্সেলোনা বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি এবং আগে আমাকে সবসময় তাদের বিপক্ষে খেলতে হয়েছে।”