June 23, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, October 4th, 2023, 7:42 pm

বিশ্ব মঞ্চে গৌরবান্বিত বাংলাদেশের ইমেজিং বিজ্ঞানী নাঈমা

বাংলাদেশি ইমিজিং বিজ্ঞানী নাঈমা বিনতে নূর বিশ্বব্যাপী বিজ্ঞানীদের কাছে নন্দিত হয়েছেন। রচেস্টার ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (আরআইটি) সঙ্গে যুক্ত বাংলাদেশি এ ইমেজিং বিজ্ঞানী।

হাইপারস্পেকট্রাল রিমোট সেন্সিং এবং রেডিয়েটিভ ট্রান্সফার মডেলিংয়ের মধ্যে নাঈমার দক্ষতার অত্যাধুনিক কৌশলগুলো তাকে পৃথিবীর সিস্টেমের জটিলতাগুলো উন্মোচন করতে সাহায্য করে।

সহজ কথায়- আলো কীভাবে পৃথিবী পৃষ্ঠে প্রতিফলিত হয়ে কাজ করে তা অধ্যয়ন করে গ্রহের রহস্যগুলো ডিকোড করছেন তিনি।

নাঈমার মূল ফোকাসগুলোর মধ্যে একটি হলো মাটির আর্দ্রতা। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, যা বিস্তৃত বাস্তুসংস্থান ব্যবস্থাকে প্রভাবিত করে এবং কৃষি থেকে বন্যার পূর্বাভাস পর্যন্ত সবকিছুকে প্রভাবিত করে।

উন্নত ইমেজিং পদ্ধতি ব্যবহার করে নাঈমা সঠিকভাবে মাটির আর্দ্রতার মাত্রা নির্ধারণ করেন। স্যাটেলাইট চিত্র ব্যবহার করে বিস্তৃত অঞ্চলে তার অনুসন্ধানগুলো প্রসারিত করেন। এসবের মাধ্যমে তার কাজের প্রাসঙ্গিকতা প্রদর্শন করে।

এই যুগান্তকারী দৃষ্টিভঙ্গি নাসাসহ মর্যাদাপূর্ণ বৈজ্ঞানিক সংস্থাগুলোর মনোযোগ আকর্ষণ করেছে। নাসা তাদের আসন্ন সারফেস বায়োলজি অ্যান্ড জিওলজি (এসবিজি) মিশনের প্রস্তুতি হিসেবে একটি বিশেষ সংগ্রহে নাঈমার কাজ তুলে ধরেছে।

নাঈমার ব্যতিক্রমী গবেষণা নাসার এসবিজি মিশন দিয়েই শুধু শেষ হয়নি। এটি নাসার জেট প্রপালশন ল্যাবরেটরি ও প্ল্যানেট ল্যাবস পিবিসি আয়োজিত বিশিষ্ট ইভেন্টগুলোতেও প্রদর্শিত হয়েছে।

বৈজ্ঞানিক সম্প্রদায় তার অবদান এবং অনন্য দক্ষতার জন্য তার প্রশংসা করেছে। যা বিশেষত বিস্তৃত ভৌগলিক অঞ্চল জুড়ে মাটিতে জৈব পদার্থ সম্পর্কে জটিল বিবরণ প্রকাশ করার জন্য আলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি আনতে প্রস্তুত।

নাঈমা শিক্ষাজীবনে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) থেকে ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জন করেন।

এ ছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর গণিত নিয়ে পড়ালেখা। এটি ইমেজিং বিজ্ঞানে তার প্রবেশের জন্য একটি শক্তিশালী ভিত্তি ছিল।

—–ইউএনবি