September 30, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, February 28th, 2022, 7:52 pm

বীর মুক্তিযোদ্ধা ও হতদরিদ্রদের জন্য গঙ্গাচড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মহতি উদ্যোগ

জেলা প্রতিনিধি, রংপুর :
জাতির শ্রেষ্ট সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও হতদরিদ্র এবং দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীর জন্য রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ এরশাদ উদ্দিন পিএএ প্রথম উপজেলায় মহতি উদ্যোগ গ্রহন করেছেন। তিনি মহতি উদ্যোগ গ্রহন করায় সর্বমহলে হচ্ছেন প্রসংশিত। এরশাদ উদ্দিন গঙ্গাচড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করেই সর্ব প্রথম তার কার্যালয়ে জাতির শ্রেষ্ট সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধার জন্য সংরক্ষিত চেয়ারের ব্যবস্থা করেন। তার কার্যালয়ে আসা ব্যাক্তিবর্গ ওই চেয়ারে বসতে পারবেনা। শুধু বীর মুক্তিযোদ্ধা তার কার্যালয়ে আসলে ওই চেয়ারে বসবে। এজন্য চেয়ারে লেখে রেখেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধার জন্য সংরক্ষিত। এছাড়া হতদরিদ্র ও দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীর আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য একটি মানবিক সহায়তা বাক্স তৈরি করে নিজ কার্যালয়ে স্থাপন করেছেন। সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারি, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, ব্যাবসায়ী, গণমাধ্যম কর্মী, বিশিষ্ট ব্যাক্তিসহ সুশিল সমাজের ব্যাক্তিবর্গ তার কার্যালয়ে প্রয়োজনে এসে যাওয়ার সময় তিনি ওই ব্যাক্তিকে নিজেই বলেন, মানবিক সহায়তার জন্য বাক্সে ২ টা টাকা দিয়ে যান। অবশ্য সবাই খুঁশি হয়ে যে যার মত বাক্সে দেয়। গঙ্গাচড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এরশাদ উদ্দিন যোগদান করেই তিনি প্রথম নিজ কার্যালয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধার জন্য সংরক্ষিত চেয়ারের ব্যাবস্থা করে সম্মানিত করেছেন। আমি বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দের পক্ষে তাকে সাধুবাদ জানাই। গণমাধ্যম কর্মী আব্দুল বারী স্বপন বলেন, হতদরিদ্র ও দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীর জন্য বিভিন্ন কর্মসুচি গ্রহন, আর্থিক সহায়তা সরকারিভাবে দেওয়া হলেও অনেকে এ সুবিধার বাইরে থেকে যায়। তাছাড়া নির্দিষ্ট সময় সীমা ছাড়া সব সময় সরকারি সুযোগ সুবিধা দেওয়া যায় না। কিন্তু অনেক হতদরিদ্র, দরিদ্র পরিবারের মেধাবী শিক্ষার্থী সহায়তার জন্য বিভিন্ন দপ্তরে আসে। তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ইউএনও একটি ভাল উদ্যোগ নিয়ে মহতির পরিচয় দিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ এরশাদ উদ্দিন পিএএ জানান, জাতির শ্রেষ্ট সন্তানদের শ্রেষ্ট মর্যাদা দেওয়া সবার দায়িত্ব। আমি তাই করেছি। এছাড়া অনেক হতদরিদ্র পরিবার বিভিন্ন সময়ে সহায়তার জন্য ও দরিদ্র পরিবারের মেধাবী শিক্ষার্থী লেখাপড়ার সহায়তা চাওয়ার জন্য আসে। তাদের পাশে সবার সহযোগিতায় দাঁড়াতে এ উদ্যোগ নিয়েছি।