October 8, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, January 12th, 2022, 8:34 pm

বেতন না পাওয়ায় চাকরি ছাড়লেন চীনে নিযুক্ত আফগান রাষ্ট্রদূত

অনলাইন ডেস্ক :

চীনে নিযুক্ত আফগানিস্তানের রাষ্ট্রদূত জাভিদ আহমদ কায়েম কয়েক মাস বেতন না পাওয়ার পর চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন। অগাস্টে তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতায় আসার পর থেকে বেতন পাননি বলে এক টুইটার পোস্টে জানিয়েছেন তিনি, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো ১ জানুয়ারির তারিখ দেওয়া একটি চিঠিতে, যা টুইটারেও পোস্ট করা হয়েছে, কায়েম জানান, তাদের দূতাবাসের অনেক কূটনীতিক ইতোমধ্যেই চাকরি ছেড়ে চলে গেছেন আর অগাস্টের পর থেকে কাবুল তাদের কোনো বেতন পাঠায়নি। চাকরি ছাড়ার বিষয়ে তিনি বলেছেন, ব্যাক্তিগত ও পেশাগত অনেক কারণ আছে, কিন্তু আমি এখানে সেগুলো উল্লেখ করতে চাই না। আফগানিস্তানের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত সীমানা থাকা চীন অগাস্টে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশটিতে বিভিন্ন মানবিক সহায়তা পাঠিয়েছে। নিজের চিঠিতে কায়েম জানিয়েছেন, দূতাবাসে নতুন একজনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে; তার নাম শুধু ‘মি. সাদাত’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। কায়েমের পদে কে আসছেন, সে বিষয়ে মন্তব্যের জন্য রয়টার্সের করা অনুরোধে তাৎক্ষণিকভাবে সাড়া দেয়নি আফগানিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন গত মঙ্গলবার এক দৈনিক ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন, কায়েম চীন ছেড়ে চলে গেছেন; তবে কখন এবং কোথায় গিয়েছেন সে বিষয়ে কিছু জানাননি। চীনসহ বিশ্বের কোনো দেশই এখন পর্যন্ত আফগানিস্তানের নতুন তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি। তাদের বিরুদ্ধে আরোপ করা কঠোর নিষেধাজ্ঞার কারণে দেশটির সরকারি অর্থব্যস্থা পঙ্গু হয়ে গেছে। তালেবান আকস্মিকভাবে ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিদেশে থাকা শত শত আফগান কূটনীতিক দোদুল্যমান অবস্থায় আছেন, অনেকে পরিবার নিয়ে দেশে ফিরতে ভয় পাচ্ছেন এবং বিদেশে আশ্রয়ের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন। চিঠিতে কায়েম জানিয়েছেন, ১ জানুয়ারি পর্যন্ত দূতাবাসের একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে এক লাখ ডলার অবশিষ্ট ছিল ও অন্য আরেকটিতে আরও কিছু অর্থ আছে। দূতাবাসের পাঁচটি গাড়ির চাবি দপ্তরে রাখা আছে আর দু’টি গাড়ি বাতিল করতে হবে বলে চিঠিতে জানিয়েছেন তিনি। স্থানীয় কর্মীদের সবাইকে ২০ জানুয়ারি, ২০২২ পর্যন্ত বেতন পরিশোধ করে দিয়েছি আমি। তাদের কাজ শেষ, বলেছেন তিনি।