June 26, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, June 15th, 2022, 7:56 pm

বেয়ারস্টো-স্টোকস তান্ডবে রোমাঞ্চকর জয়ে রেকর্ড বইয়ে ইংল্যান্ড

অনলাইন ডেস্ক :

জনি বেয়ারস্টো ও অধিনায়ক বেন স্টোকসের ব্যাটিং তান্ডবে নটিংহ্যাম টেস্টে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ উইকেটে রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। এই জয়ে সিরিজ নিশ্চিত করার পাশাপাশি ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে ইংলিশরা। টেস্ট জিততে পঞ্চম ও শেষ দিনের প্রায় আড়াই সেশনে, ৭২ ওভারে ২৯৯ রানের টার্গেট পায় ইংল্যান্ড। জবাব দিতে নেমে ৯৩ রানেই ৪ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। এ অবস্থায় জুটি বাঁধেন বেয়ারস্টো ও স্টোকস। চাপের মধ্যে থেকে নিউজিল্যান্ডের বোলারদের কাউন্টার অ্যাটাক করেন বেয়ারস্টো ও স্টোকস। পঞ্চম উইকেটে ১২১ বলে ১৭৯ জুটি গড়ে ইংল্যান্ডের জয়ের পথ সহজ করে দেন তারা। ৮৫ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে নবম সেঞ্চুরি তুলে ১৩৬ রানে ফিরেন বেয়ারস্টো। ইনিংসে ১৪টি চার ও ৭টি ছক্কা মারেন এ তারকা ব্যাটার। ৫১ বলে হাফ-সেঞ্চুরি করেন বেয়ারস্টো। আর পরের ৫০ রানে পৌঁছাতে ২৬ বল খরচ করেন বেয়ারস্টো। অর্থাৎ ৭৭ বলে সেঞ্চুরিতে পা রাখেন তিনি। দলের জয় থেকে ২৭ রান দূরে থাকতে আউট হন বেয়ারস্টো। এরপর ২৭ বলে অবিচ্ছিন্ন ২৭ রানের জুটি গড়ে ইংল্যান্ডকে অবিস্মরনীয় জয় এনে দেন স্টোকস ও উইকেটরক্ষক বেন ফোকস। স্টোকস ১০টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৭০ বলে অপরাজিত ৭৫ ও ফোকস ১২ রানে অপরাজিত ছিলেন। চতুর্থ ইনিংসে দ্রুত সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয়স্থানে নিজের নাম লিখেন বেয়ারস্টো। সবার উপরে আছেন ইংল্যান্ডের গিলবার্ট জেসপ। ১৯০২ সালে ওভালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৭৬ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন জেসপ। ম্যাচ জিততে শেষ সেশনে ৩৮ ওভারে ১৬০ রান দরকার ছিলো ইংল্যান্ডের। ঐ সেশনে ওভার প্রতি ১০ করে রান নিয়ে মধুর জয় পায় ইংল্যান্ড। টেস্টের শেষ সেশনে দ্রুত রানে যা বড় ফরম্যাটে নয়া রেকর্ড। আগেরটি ছিলো নিউজিল্যান্ডের। ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের প্রথম দিনের শেষ সেশনে ৮ দশমিক ২৯ রান রেটে ২৪ ওভারে ৩ উইকেটের বিনিময়ে ১৯৯ রান তুলেছিলো নিউজিল্যান্ড। রান চেজে ট্রেন্ট ব্রিজে নিজেদের রেকর্ড ভাঙ্গলো ইংল্যান্ড। এবারই সর্বোচ্চ ২৯৯ রানের টার্গেট স্পর্শ করলো ইংলিশরা। আগে ২৮৪ রানের টার্গেট স্পর্শ করেছিলো তারা। ২০০৪ সালে এই ভেন্যুতেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেই ২৮৪ রানের টার্গেট স্পর্শ করে ৪ উইকেটে ম্যাচ জিতেছিলো ইংলিশরা। তবে এই টাগের্ট স্পর্শ করার নজিরটি ইংল্যান্ডের পক্ষে পঞ্চমস্থানে জায়গা করে নিলো। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৩৫৯ রানের টার্গেট স্পর্শ করেছিলো ইংলিশরা। ২০১৯ সালে লিডসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৯ উইকেটে ৩৬২ রান করে নাটকীয় জয় পেয়েছিলো ইংল্যান্ড। এক টেস্টে বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারিতে রানের দিক দিয়ে টেস্টে বিশ^রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। নটিংহ্যাম টেস্টে বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারিতে ১০৪৪ রান করেছে দু’দল। এর আগে পুরো এক টেস্টে বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারিতে ১হাজার রান কখনও হয়নি। ২০০৪ সালে সিডনিতে ৯৭৬ রান করেছিলো ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। শুধুমাত্র রানের দিক দিয়েই নয়, বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারিতেও বিশ^রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। পুরো টেস্টে ২৪৯টি বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারি মেরেছে তারা। আগের রেকর্ডটি ছিলো ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার। ২০০৪ সালে সিডনিতে ২৪২টি বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারি মেরেছিলো দু’দলের ব্যাটাররা।