September 29, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Saturday, November 13th, 2021, 5:58 pm

ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে লড়বেন দুতের্তের মেয়ে সারা

অনলাইন ডেস্ক :

ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রোদ্রিগো দুতের্তের বড় মেয়ে সারা দুতের্তে কার্পিও আগামী নির্বাচনে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে লড়বেন। তার দলের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ইতোমধ্যেই তিনি প্রার্থী হিসেবে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেছেন। সিএনএন-এর এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সম্প্রতি প্রেসিডেন্ট দুতের্তে জানান, আগামী বছরের নির্বাচনে তিনি অংশ নিচ্ছেন না। এমনকি রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়াবেন বলেও ঘোষণা দেন তিনি। অপরদিকে দুতের্তের মেয়ে সারা দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় দাভাও শহরের বর্তমান মেয়র। তিনি ভিন্ন একটি রাজনৈতিক দলের সদস্য। এর আগে নির্বাচনের বিষয়ে স্পষ্ট কোনো বার্তা না দিলেও গত শনিবার মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সারা। দেশটিতে সাম্প্রতিক জনমত জরিপও চলতি বছর তাকে প্রেসিডেন্ট পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে এক নম্বরে স্থান দিয়েছে। তবে সম্প্রতি নারীদের দেশ পরিচালনার বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বেশ সমোলোচনার শিকার হয়েছিলেন দুতের্তে। তার মতে, দেশ শাসন করা নারীদের কাজ নয়। মনস্তাত্ত্বিক পার্থক্যের কারণে নারীরা দেশ শাসনে অযোগ্য বলে মনে করেন তিনি। সে সময় তিনি জানান, শুধু নারী হওয়ার কারণে নিজের মেয়েকেও আগামী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে লড়ার অনুমতি দিচ্ছেন না। কিন্তু এমন ঘোষণার পরই তার মেয়ের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়টি স্পষ্ট হলো। ২০২২ সালের ৯ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওই নির্বাচনে পার্টিদো ফেডারেল অ্যান্ড লাকাস-সিএমডি জোটের হয়ে লড়বেন সারা। চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে, দাভাও শহরের মেয়র হিসেবে পুনরায় নির্বাচনের জন্য প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেন সারা। একই সঙ্গে তিনি দাভাওভিত্তিক হুগপং ন্যাং পাগবাবাগো পার্টি থেকে পদত্যাগ করেন। ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতা গ্রহণ করেন দুতের্তে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই তিনি দেশব্যাপী মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। বিচারবর্হিভূত এসব অভিযানে কয়েক হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। তবে সমালোচকরা বলছেন, এসব অভিযানের মাধ্যমে সন্দেহভাজনদের বিচারের আওতায় না এনেই হত্যার ব্যাপারে নিরাপত্তা বাহিনীকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। গত জুনে ফিলিপাইনে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধে হত্যার ঘটনার সম্পূর্ণ তদন্তের জন্য আবেদন জানান নেদারল্যান্ডসের হেগেতে অবস্থিত আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতের প্রসিকিউটরা। তারা বলেন, দেশটিতে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের ঘটনা সংঘটিত হয়ে থাকতে পারে।