September 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, August 24th, 2022, 8:33 pm

ভারত-পাকিস্তান লড়াইয়ে কে জিতবে, ভবিষ্যদ্বাণী আফ্রিদির

অনলাইন ডেস্ক :

এশিয়া কাপ শুরুর দ্বিতীয় দিনেই অর্থাৎ ২৮ আগস্ট মাঠে গড়াবে বহুল প্রতীক্ষিত ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। গত বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর এবারই প্রথম মুখোমুখি হচ্ছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। উত্তেজনার পারদ চড়তে থাকা ম্যাচটি ঘিরে অনেক কিংবদন্তিই নিজের মতামত জানিয়েছেন। পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি যদিও সরাসরি কাউকে ফেভারিট বলেননি, তবে কৌঁসুলি উত্তরে জানিয়ে দিয়েছেন, দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর দ্বৈরথে শেষ হাসি হাসবে কারা। রাজনৈতিক বৈরিতার কারণে আইসিসির ইভেন্ট কিংবা এশিয়া কাপ ছাড়া এখন আর ভারত-পাকিস্তান দ্বৈরথ দেখা যায় না। আর তাই বিশেষ এ ম্যাচগুলো ঘিরে সমর্থকদেরও থাকে বাড়তি উন্মাদনা। যেই উন্মাদনা পাক-ভারত সীমান্ত ছাড়িয়ে ছড়িয়ে পড়ে ক্রিকেটবিশ্বের অলিগলিতে। সমর্থকদের জন্য বড় সুখবর হচ্ছে-আসন্ন অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের আগে আবারও দুই দেশের হাই-ভোল্টেজ ম্যাচ দেখার সাক্ষী হচ্ছে তারা। ম্যাচটি ঘিরে ছড়াচ্ছে উত্তাপ। চলছে কথার লড়াই। যেন বাইশ গজের লড়াইয়ের আগে অন্য এক লড়াই। যে লড়াইয়ে শামিল সীমান্তের দুই পারের মানুষই। সাবেক পাক ক্রিকেটার ওয়াকার ইউনিস যেমন ভারতকে খোঁচা দিতে ভোলেননি, তেমনি পাটকেল ছুড়েছেন ইরফান পাঠানরাও। কদিন আগে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াই নিয়ে আইসিসির এক অনুষ্ঠানে অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি রিকি পন্টিং এগিয়ে রাখলেন ভারতকেই। জানান, মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকবে ভারত এবং শিরোপাও জিতবে তারা। পন্টিং বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ কিংবা এশিয়া কাপ যেকোনো টুর্নামেন্টেই ভারতকে টক্কর দেয়া কঠিন। যে কোনো টিমের চেয়ে তাদের দলের গভীরতা বেশি। আর তাই মনে করি, এবারের এশিয়া কাপ ভারতই জিতবে।
এদিকে, টুইটারে এক অনুরাগী শহিদ আফ্রিদির কাছে জানতে চান, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কোন দল শক্তিশালী এবং (এশিয়া কাপে) কারা জিতবে? আফ্রিদির জবাবটা ছিল কৌশলী। জানান, ‘কোন দল (ম্যাচে) কম ভুল করবে, এটা নির্ভর করছে তার ওপর।’ অর্থাৎ, ম্যাচের দিন যে দল কম ভুল করবে, তারাই জিতবে ভারত-পাক লড়াইয়ে, এমনটাই মত আফ্রিদির।
ভারত স্কোয়াড: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), কে এল রাহুল (সহ-অধিনায়ক), বিরাট কোহলি, সূর্যকুমার যাদব, দীপক হুডা, রিশভ পন্ত, দীনেশ কার্তিক, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, যুজবেন্দ্র চাহাল, রবি বিষ্ণোই, ভুবনেশ্বর কুমার, আর্শদীপ সিং ও আভেশ খান।
পাকিস্তান স্কোয়াড: বাবর আজম (অধিনায়ক), শাদাব খান (সহ-অধিনায়ক), ফখর জামান, হায়দার আলি, হ্যারিস রউফ, ইফতেখার আহমেদ, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ নেওয়াজ, মোহাম্মদ রিজওয়ান, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, নাসিম শাহ, শাহ নেওয়াজ দাহানি ও উসমান কাদির।