May 26, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, February 15th, 2022, 8:27 pm

ভালবাসা দিবসের মানে বদলে গেল পঙ্গু মিজানের জীবনে

ভালবাসা দিবসে জীবিকার্জনের জন্য দোকান ঘর উপহার পেয়ে ভালবাসার মানেটাই বদলে গেল সড়ক দুর্ঘটনায় পঙ্গুত্ব বরণ করা মিজানের। তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছে ফরিদপুরের সেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘আমরা করবো জয়’। সংগঠনটি জীবিকা অর্জনের জন্য মিজানের বাড়ির সামনে একটি মুদি দোকান তৈরি করে দিয়েছে।

সোমবার রাতে দোকান উদ্বোধন করে পুনরায় সংসারের হাল ধরতে পেরে খুশি মিজান।

মিজান তালুকদার (৩২) ফরিদপুর শহরের উত্তর আলীপুর এলাকার রেজাউল করিম তালুকদারের বড় ছেলে । মিজান দুই সন্তানের জনক। পেশায় একজন অটোরিকশা চালক ছিলেন। ভাড়ায় অটোরিকশা চালিয়ে সংসারের খরচ সংকুলান করতে না পেরে একদিন মিনি পিক আপের হেলপারি কাজে যোগ দেন।

গেল বছর ২ অক্টোবর ছিল তার হেলপারি কাজের প্রথম দিন। সন্ধ্যায় ফরিদপুরের কানাইপুর বাজার থেকে মিনি পিকআপে পান লোড করে রওনা দেন যশোরের উদ্দেশ্যে।

রাত ২টার দিকে যশোরের চৌরাশ এলাকায় কাভার্ডভ্যানের সাথে সংঘর্ষে গুরুতর আহত হন পিকআপের চালক মো. সোহেলসহ মিজান। ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার করে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতাল, শেখ হাসিনা বার্ন উইনিট, ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সেবা নেন। অবশেষে প্রায় সাড়ে তিন লাখ টাকা ব্যয় করার পরও বাম পা কেটে ফেলতে হয় তার। শুরু হয় তার পঙ্গু জীবন। সোহেলের কোমরের হাড় ভেঙ্গে যাওয়ার তিনি এখনও পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।।

পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারীকে নিয়ে অভাবের সংসারে শুরু হয় সংগ্রাম। তাকে প্রতিদিন ৮০০ টাকার ওষুধ খেতে হয় মিজানের।

তার খবর পেয়ে ‘আমরা করবো জয়’ সংগঠনের সভাপতি আহমেদ সৌরভ তাকে সাহায্যে এগিয়ে আসেন। মিজানের কাছে শুনেন তার প্রয়োজনে একটি দোকান ঘর তৈরি করে দেন।

আহমেদ সৌরভ মিজানের দোকান ঘর নির্মানের অর্থ সহায়তা করেন আমেরিকা প্রবাসী ব্যবসায়ী গোলাম সামধানী খান।

সংগঠনের সভাপতি আহমেদ সৌরভ জানান, ‘আমরা করবো জয়’ সংগঠনের পক্ষ থেকে আমরা সবসময় মানুষের পাশে গিয়ে দাড়াই। মিজান ভাই একজন আত্মনির্ভরশীল মানুষ। তিনি চেয়েছিলেন তার জন্য একটা দোকান করে দিতে। আমরা তার মুখে হাসি ফোটাতে পেরে আনন্দিত।

মিজান তালুকদার বলেন, দুর্ঘটনা আমার জীবনকে অসহায় করে তুলেছিল। এমন সময় মানবিক ভায়েরা আমার পাশে এসে দাঁড়ায়। আমার থমকে যাওয়া জীবনকে আবার গতিশীল করে দেয়। আমি তাদের মঙ্গল কামনা করি।

সমাজসেবক কাজী গোলাম মহিউদ্দিন তসলিম বলেন, আমি তার জন্য বিনামূল্যে ওষুধের ব্যবস্থা করে দেব।

স্থানীয় ১০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সামছুল আরেফিন সাগর বলেন, ‘আমরা করবো জয়’ একটি মানবিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন। আমি মিজারের জন্য প্রতিবন্দি ভাতার আওতায় আনার জন্য কাগজপত্র জমা দিয়েছি।

দোকানটি উদ্বোধনের সময় ইকরাম হাসান সৈকত,শরীফ খান, মুহুয়া ইসলাম, সাকিবুল ইসলাম, মামুন সেখ, রিয়াদ সেখ, মাহাবুব মোল্লা সহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

—ইউএনবি