December 9, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, October 20th, 2022, 4:52 pm

রংপুরে ১ দিনের জন্য পরিবার পরিকল্পনা পরিচালকের প্রতীকি দায়িত্ব পালন করলেন নিস্বর্গ

আব্দুর রহমান মিন্টু, রংপুর :

এক দিনের জন্য বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) রংপুর বিভাগের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালকের প্রতীকি দায়িত্ব পালন করেছে একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী নিস্বর্গ।আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস উদ্যাপনের অংশ হিসাবে, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল প্রতি বছর বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী গার্লস টেকওভার নামক বিশেষ ক্যাম্পেইন আয়োজন করে। এই গার্লস টেকওভার এর উদ্দেশ্য হলো কিশোরী ও যুবানারীদের মধ্যে উচ্চাকাংখী হওয়ার স্বপ্ন জাগিয়ে তোলা এবং তাদের মাঝে বিশ্বাস স্থাপন করা যে, তারা স্বপ্ন দেখতে এবং নেতৃত্ব দানে পারদর্শী এবং স্বাধীন। গার্লস টেকওভার এর অংশ হিসেবে নিস্বর্গ প্রতীকি হিসাবে একদিনের জন্য রংপুর বিভাগের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।দিনের শুরুতে রংপুর বিভাগের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালক দেওয়ান মোর্শেদ কামাল ফুল দিয়ে নিস্বর্গকে স্বাগত জানায় এবং প্রতীকি পরিচালক হিসাবে নিস্বর্গকে তার অফিসের সদস্যদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। পরিচয় পর্ব শেষে পরিচালক রংপুর বিভাগের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের প্রধান প্রধান কাজ সম্পর্কে নিস্বর্গকে অবহিত করেন।এরপর নিস্বর্গ পরিচালকের সাথে প্রতিদিনের কাজে অংশগ্রহণ করেন। এই সময়ে নিস্বর্গ খেয়াল করেন একজন পরিচালক হিসাবে কিভাবে কাজ করেন এবং কিভাবে নেতৃত্বের প্রকাশ ঘটান, কিভাবে তিনি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন, কিভাবে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজনের সাথে আলোচনা করেন এবং কিভাবে সিদ্ধান্ত দেন। দাপ্তরিক কাজ শেষে নিস্বর্গ এবং পরিচালক তাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। কন্যা শিশুদের ক্ষমতায়নের জন্য এই ধরনের একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করার জন্য প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। ”প্রতীকীভাবে রংপুর বিভাগের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালকের প্রতীকি দায়িত্ব পালন করায় আমার জীবনে একটি নতুন স্বপ্ন তৈরি হয়েছে। আমি পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের বিভিন্ন কার্যক্রম সর্ম্পকে এবং এই বিভাগগুলি কিভাবে জনগণের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে কাজ করে বিশেষ করে কৈশোর প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ে কি কি কাজ করছে এবং কিভাবে কাজ করছে তা জানতে পেরেছি। আজকে আমি প্রতীকি পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছি। আমি চাই প্রতীকি নয়, সত্যিকারের পরিচালক হতে,” বললেন নিস্বর্গ ।মেয়ে শিশুদের অধিকার রক্ষায় কাজ করা নিস্বর্গের কাছে নতুন বিষয় নয়। তার এলাকায় মেয়েরা যাতে অধিকার পায় সেই বিষয়ে নিস্বর্গ কাজ করে যাচ্ছে। নিস্বর্গ জান্নাত বাল্যবিবাহ বন্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। সে তার এলাকায় বাল্যবিবাহ বন্ধ করাসহ শিশু অধিকার রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। করোনার মহামারী প্রতিরোধে এলাকার জনগণের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করেছে এবং করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বিভিন্ন সচেতনতামূলক তথ্য সরবরাহ করেছে। এছাড়াও নিস্বর্গ মাসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, বয়ঃসন্ধিকালীন পরিবর্তন এবং এই সময়ে করনীয় সর্ম্পকে এলাকার কিশোরীদের সচেতন করেছেন। বড়খাতা বন্ধু শিশু ফোরামের সদস্য নিস্বর্গ ৩ টি বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছে, মাস্ক বিতরণ করেছে। জন্ম নিবন্ধন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্য কাজ করেছেন।”প্রত্যেকটি কিশোরীর মধ্যে অমৃত সম্ভবনা রয়েছে; বড় মানুষ হওয়ার, দেশের জন্য কাজ করার। আমরা চাই তারা শারীরিক ও মানসিকভাবে বেড়ে উঠুক, দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখুক। আমাদের দায়িত্ব হলো তাদেরকে একটি নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করে দেওয়া যাতে তারা এগিয়ে আসতে পারে, স্বপ্ন দেখে এবং নেতৃত্ব প্রদান করতে পারে,”বললেন পরিচালক।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর মেডিকেল অফিসার (ক্লিনিক), মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র , ডাঃ মুহতারিমা বেগম, পরিবার পরিকল্পনা, সহকারি পরিচালক রংপুর বিভাগ এটিএম নাজমুল হুদা। প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডাঃ হৃষিকেশ সরকার, রেজানুল হক, সেফ গার্ডিং এ্যাডভাইজর, জয়েন্ট এ্যাকশন ফর নিউট্রিশন আউটকাম প্রজেক্টের ম্যানেজার ফয়েজ কাউছার, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের বিভাগীয়, জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ের অফিসের কর্মকর্তাগণ, সাংবাদিক, কিশোর-কিশোরী, অভিভাবক এবং বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তা । গার্লস টেকওভার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল – এর বৈশ্বিক কার্যক্রম। ১১ অক্টোবর, আন্তর্জাতিক কন্যা দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল গার্লস টেকওভার এর আয়োজন করে আসছে। কন্যা শিশুরা সমান সুযোগ এবং সমানাধিকার পেলে বদলে দিতে পারে তাদের নিজের জীবন, তাদের আশেপাশের সমাজ এবং সমাজের এমন বিশ্বাস থেকেই প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল গার্লস টেকওভার কর্মসূচীর উদ্যোগ গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন করে। এই কর্মসূচীর মাধ্যমে একজন কিশোরী কন্যা অথবা যুবা নারীকে নেতৃত্ব প্রদানকারীর ভূমিকা পালন করতে সহায়তা করা হয় যাতে করে তার আত্মবিশ্বাস বাড়ে এবং সে নিজের স্বপ্ন পূরণে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়। সমাজের নেতৃস্থানীয় যে জায়গাগুলোতে নারী বা মেয়েদেরকে খুব কম দেখা যায় কিংবা তাদের সাফল্যের কথা কম শোনা যায় সে জায়গাগুলোতে নিজেদের অবস্থান, নেতৃত্ব, সিদ্ধান্ত ও সাফল্য যাতে মেয়েরা তুলে ধরতে পারে সেই আত্ম বিশ্বাস তৈরীর সুযোগ করে দেয়াই গার্লস টেকওভার এর মূল উদ্দেশ্য। যে সকল সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানসমূহ নারী ও কন্যা শিশুদের সমতা ও অধিকারে বিশ্বাস করে এবং এ বিষয়ে কাজ করে, তাদের জন্য গার্লস টেকওভার কর্মসূচী প্রতিশ্রুতি ও সম্প্রীতি প্রদর্শনের একটি গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্ম হিসাবে ইতোমধ্যেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ।##