May 21, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, April 15th, 2022, 4:44 pm

রমনার বটমূলে বোমা হামলা: মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

রাজধানীর রমনা বটমূলে ২০০১ সালে বোমা হামলার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার কিশোরগঞ্জের ভৈরবে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তি হলেন- মুফতি শফিকুর রহমান ওরফে আব্দুল করিম ওরফে শফিকুল ইসলাম (৬১)।

র‌্যাব সদরদপ্তরের এএসপি (মিডিয়া) ইমরান খান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার ব্যক্তি হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার তথ্য জানিয়েছেন।

মুফতি শফিকুর জিজ্ঞাসাবাদে জানান, তিনি ১৯৮৭ সালে করাচির ইউসুফ বিন নুরি মাদ্রাসায় পড়তে গেলে নিষিদ্ধ ঘোষিত ইসলামি সংগঠন হরকাত-উল-জিহাদের প্রধান মুফতি হান্নানের সংস্পর্শে এসেছিলেন।

পাকিস্তান থেকে পরবর্তীতে আফগানিস্তানে যাওয়ার সময় তিনি জঙ্গি গোষ্ঠীটির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। আফগানিস্তান থেকে বাংলাদেশে ফিরে তিনি ‘হরকাত-উল-জিহাদ (বি)’ নামে জঙ্গি সংগঠন গঠন করেন।

১৯৯০ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত তিনি জঙ্গি গোষ্ঠীটির প্রচার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত তিনি দলটির আমির ছিলেন। ১৯৯৭ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত তিনি হরকাত-উল-জিহাদের সূরার সদস্য ছিলেন।

তিনি ২০০১ সালের পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রমনা বটমূলে বোমা হামলা, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা এবং ২৭ জানুয়ারি ২০০৫ সালে হবিগঞ্জে গ্রেনেড হামলায় সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়াসহ পাঁচজনকে হত্যার ঘটনায় জড়িত ছিলেন।

রমনার বটমূলে হামলার পর ২০০১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি গোপনে সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। এরপর ২০০৮ সাল থেকে নরসিংদীর একটি মাদরাসায় অবস্থান করে আত্মগোপন করেন।

নরসিংদীতে থাকাকালীন আব্দুল করিম ছদ্মনাম ব্যবহার করে স্থানীয় একটি মসজিদে পাঁচ হাজার টাকা বেতনে ইমামের কাজ করতেন।

এএসপি ইমরান খান জানান, বিভিন্ন জায়গায় পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতেন তিনি। ‘গ্রেপ্তার ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

—ইউএনবি