September 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, September 14th, 2022, 7:22 pm

রাফির নতুন ধামাকা ‘নিঃশ্বাস’

অনলাইন ডেস্ক :

ঈদুল আজহায় মুক্তি পেয়েছে পরিচালক রায়হান রাফির ‘পরাণ’। এখনো দাপটের সঙ্গে প্রেক্ষাগৃহে চলছে ছবিটি। ‘পরাণ’র সাফল্যের রেশ থামার আগেই এ নির্মাতা তার পরের ছবি ‘দামাল’ মুক্তির ঘোষণা দেন। জানান, আগামী ২৮ অক্টোবর মুক্তি পাবে দামাল। তবে এবার জানা গেছে নতুন খবর। রাফির ‘দামাল’ মুক্তির আগেই মুক্তি পাবে তার ওয়েব ফিল্ম ‘নিঃশ্বাস’। ১৫ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় দেশি ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকিতে মুক্তি পাবে ওয়েব ফিল্মটি। এরই মধ্যে ১ মিনিট ৫৬ সেকেন্ডের ট্রেইলার যেন রহস্যের অন্ধকারে ফেলে দেয় রাফি। দারুণ শাসরুদ্ধকর এই ট্রেইলারে তাসনিয়া ফারিণকে দেখা যায় হাসপাতালে তিনি তার বাচ্চাকে খুঁজছেন। সেই হাসপাতালে কয়েকটি পরিবার ও কয়েকজন মানুষের বেঁচে থাকার লড়াই চলছে। এই লড়াই আরও কঠিন হয়ে পড়ে যখন মুখোশধারী কিছু উগ্রবাদী ছক আঁটে এক বিধ্বংসী হামলার। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে একজন ঘুরে দাঁড়ায়, প্রতিরোধের দুর্গ গড়ে। ‘নিঃশ্বাস’ ওয়েব ফিল্মে অভিনয় করেছেন তাসনিয়া ফারিণ, ইমতিয়াজ বর্ষণ, সাফা কবির, সৈয়দ জামান শাওন, রাশেদ মামুন অপু, সোলাইমান খোকা, দিলারা জামান, নীল হুরেজাহান, অশোক ব্যাপারী, হামিদুর রহমান, কামরুজ্জামান তাপু, ফরহাদ লিমন, ফারজানা ছবি, আনোয়ার হোসেন, পূর্ণিমা বৃষ্টি, মাসুম রেজওয়ান, রুশো শেখ, জন আর্মস্ট্রংসহ এক ঝাঁক অভিনেতা-অভিনেত্রী। ফারিণ বলেন, ‘শুধু চরকির জন্য নয় আমার ক্যারিয়ারেও এরকম কাজ করা হয়নি। কাজটা করার জন্য আমাকে নতুন অনেক কিছু করতে হয়েছে। লড়াই প্রশিক্ষণ, অস্ত্র প্রশিক্ষণসহ শারীরিকভাবে অনেক কিছু শিখতে হয়েছে। সেই সঙ্গে আমার জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল এই চরিত্রের দর্শনটা বিশ্বাস করা। প্রথমবার আমি এমন একটা চরিত্র করেছি যেখানে বাস্তবে আমার সঙ্গে বিন্দুমাত্র মিল নেই। ‘নিঃশ্বাস’র গল্প খুব সাহসী। বেশির ভাগ শট ওয়ান টেক শট। এজন্য একটা সিন করার আগে অনেকবার রিহার্সসেল করা হয়েছে। অনেক ভালো প্রি-প্রডাকশনের কারণে কাজটা সহজ হয়েছে। লাইট, সেট ডিজাইন, ক্যামেরার কাজ সব মিলিয়ে খুব দুর্দান্ত টিম ওয়ার্ক।’ ফারিণ আরও বলেন, ‘আমি চাই মানুষ কোনো বিচার ছাড়াই কনটেন্ট উপভোগ করুক। সহানুভূতি নিয়ে দেখলে দর্শক গল্পটি আরও ভালোভাবে বুঝতে পারবে।’ ইমতিয়াজ বর্ষণ বলেন, ‘নিঃশ্বাস চরকির জন্য আমার প্রথম কাজ। রাফির কাজের ধরন আমার জন্য নতুন অভিজ্ঞতা। আমি এনজয় করেছি। সিনেমার গল্পটা খুব ইন্টারেস্টিং।’ তিনি আর বলেন, ‘নিঃশ্বাস-এ আমার প্রত্যেক সহ-অভিনেতা অত্যন্ত গুণী এবং শক্তিশালী। ফারিণ তো দুর্দান্ত কাজ করেছেন। রাশেদ মামুন অপু ভাই, হামিদ ভাই, নীল, মাসুম যাদের সঙ্গে আমি স্ক্রিনে ছিলাম তারা প্রত্যেকেই নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। নিঃশ্বাস আরও সমৃদ্ধ করেছেন শাওন, সাফা, অশোক দা, দিলারা জামান। বিশেষ ধন্যবাদ ডিওপি রাজিব এবং অ্যাকশন ডিরেক্টর অ্যাডওয়ার্ডকে। আর্ট এবং কস্টিউম ডিপার্টমেন্টকেও ধন্যবাদ।’ সিনেমাটি নিয়ে পরিচালক রায়হান রাফি বলেন, ‘চরকি আমার জন্য একটা সিনেমা হল। যারা হলে যেতে পারেন না তারা দেশ-বিদেশ থেকে চরকি দেখেন। ‘নিঃশ্বাস’ এখন পর্যন্ত আমার করা সবচেয়ে এক্সপেরিমেন্টাল কাজ। আমার সব ছবি থেকে এই ছবির মেকিং, স্টাইল সব কিছুই আলাদা।’ রাফি আরও বলেন, ‘আমি আসলে দর্শককে ঠকাতে চাই না। দর্শক তো নিজের সময়, টাকা দিয়ে সিনেমাটা দেখে। তাদের ঠকালে তো আমাদের ওপর থেকে বিশ্বাস উঠে যাবে। জানি না নিঃশ্বাস’র টিজার দেখে দর্শক কতটুক বুঝতে পেরেছে, এই সিনেমার অনেক বড় একটা সেট বানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে সিনিয়র জুনিয়র মিলিয়ে ৫০-৬০ জন শিল্পী কাজ করেছেন। আমরা অনেক পরিশ্রম করে কাজ করি।’