November 30, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, November 1st, 2022, 10:53 am

রামগড়ে বিজিবি জোন থেকে নতুন রিকশা পেয়ে মহাখুশি হতদরিদ্র বৃদ্ধ আব্দুল হাই

নিজাম উদ্দিন লাভলু, রামগড় :
সময়ের পর্রিবতনে অন্যান্য এলাকার মত রামগড়েও রিকশা ছেড়ে ইজিবাইক(টমটম) বা সিএনজি চালিত অটো রিকশা কিনে জীবিকা র্নিবাহ করছেন চালকরা । কিন্তু চরম অর্থাভাবে জর্জরিত রামগড় পৌরসভার মাস্টারপাড়ার বাসিন্দা হতদরিদ্র ষার্টোধ আব্দুল হাই’র পক্ষে টমটম তো দূরের কথা নতুন একটি রিকশাও কিনতে পারছিলেন না। ফলে বহুদিনের পুরাতন নিজের ভাঙাচূড়া রিকশা চালিয়ে কোন রকমে পরিবারের মুখের খাবার যোগাতেন। প্রায় অচল হয়ে পড়া রিকশাটি অতিরিক্ত শ্রম দিয়ে চালিয়ে কখনও কখনও নিজেই অসুস্থ হয়ে পড়তেন এ বৃদ্ধ রিকশা চালক। পথ চলতে এ বৃদ্ধ হত দরিদ্র রিকশা চালক নজরে আসে রামগড় বিজিবি জোন ও ৪৩ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্নেল মো: হাফিজুর রহমানের। তিনি এ বৃদ্ধ চালককে ডেকে নেন নিজ অফিসে। ভাঙাচূড়া অচলপ্রায় রিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহের করুন কথা শুনে ব্যাটারি চালিত একটি রিকশা কিনে দেয়ার মনোস্থির করেন বিজিবি অধিনায়ক। কিন্তু ষার্টোধ রিকশা চালক আব্দুল হাই অধিক দামের ব্যাটারি চালিত রিকশার বদলে পায়ে চালিত রিকশা চান। তার পছন্দ অনুযায়ি পায়ে চালিত একটি নতুন রিকশাই কিনে দেন অধিনায়ক। রবিবার(৩০ অক্টোবর) ব্যাটালিয়ন সদরে জোন অধিনায়ক লে.কর্নেল মো: হাফিজুর রহমান তার হাতে তুলে দেন নতুন রিকশাটি। তার কাছে স্বপ্নেরমত অবিশ্বাস্য এমন একটি নতুন রিকশা পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হন বৃদ্ধ রিকশা চালক।
রবিবার রামগড় জোন সদরে জোন ও ৪৩ বিজিবি’র আওতাধীন বিভিন্ন গ্রামের ১৪০টি গরীব, অসহায় পাহাড়ি-বাঙ্গালী পরিবারের মাঝে বিভিন্ন সামগ্রী ও নগদ আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়। সম্প্রীতি ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় হতদরিদ্র বৃদ্ধ চালককে রিকশাছাড়াও প্রশিক্ষিত পাঁচজন দরিদ্র নারীকে ৫টি সেলাই মেশিন, গৃহ মেরামতের জন্য ৫ বান্ডেল ঢেউটিন, একটি টিউবওয়েল, ৪৭টি পরিবারকে চিকিৎসা ও বিবাহদানের জন্য আর্থিক সহায়তা এবং ৮১টি দুস্থ পরিবোরকে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হয়। জোন ও ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে.কর্নেল মো: হাফিজুর রহমান পি এস সি আনুষ্ঠানিকভাবে এসব বিতরণ করেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে ৪৩ বিজিবির সহকারী পরিচালক মো: রাজুসহ বিভিন্ন পদবীর কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।