May 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, March 7th, 2022, 9:40 pm

রাশিয়ায় যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভে গ্রেপ্তার ১০ হাজারের বেশি

Russia, Moscow

অনলাইন ডেস্ক :

ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসন শুরুর পর থেকে রাশিয়ার বিভিন্ন শহরে শুরু হয় বিক্ষোভ। এ যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ থেকে একদিনে চার হাজার ৩শ’র বেশি মানুষকে আটক করা হয়েছে। এ নিয়ে এ পর্যন্ত ১০ হাজারের বেশি বিক্ষোভকারীকে আটক করেছে রুশ নিরাপত্তা বাহিনী। ইউক্রেনে রুশ অভিযানের ১১ দিন পেরিয়ে গেছে। এখনো রাজধানী কিয়েভের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেনি রুশ সামরিক বাহিনী। তবে শহরটির দিকে ক্রমেই এগিয়ে যাচ্ছেন রুশ সেনারা। আর তাদের শক্তভাবেই প্রতিরোধে প্রস্তুত ইউক্রেনের সেনাবাহিনী ও শহরবাসী। তবে ইউক্রেনে রুশ অভিযান শুরুর পর থেকে রাশিয়ার ৫৬টি শহরে চলছে যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ। বিবিসি সূত্র থেকে জানা যায়, রাশিয়ায় যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভে আটকদের মধ্যে সতেরশো ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে শুধু মস্কো থেকে। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাত দিয়ে এমন তথ্য দিয়েছে রিয়া নিউজ এজেন্সি। অন্যদিকে মানবাধিকার সংস্থা ওভিডি-ইনফো বলছে, মোট ৫৩টি শহর থেকে বিক্ষোভকারীদের আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে গত রোববারই আড়াই হাজারের বেশি লোক আটক করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের নাম এবং কোথায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে এসব তথ্য প্রকাশ করেছে সংগঠনটি। তবে সংগঠনটি জানিয়েছে, যতজন সম্পর্কে পুলিশ তথ্য দিয়েছে, সংখ্যা তার চেয়ে অনেক বেশি হতে পারে। আমরা যাদের সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে জানি এবং যাদের নাম প্রকাশ করতে পারছি, শুধু তাদের আমরা তথ্য প্রকাশ করছি। সম্প্রতি রাশিয়াতে বিক্ষোভের ওপর নানা বিধি-নিষেধ আরোপ করা হলেও ইউক্রেনে হামলার প্রতিবাদে বহু বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। হামলা শুরুর পর থেকে দশ হাজারের মতো রাশিয়ানকে আটক করা হয়েছে। ওভিডি-ইনফো’র একজন মুখপাত্র জর্জিয়া থেকে রয়টার্সকে জানিয়েছেন, আমরা ব্যাপক প্রতিবাদ দেখতে পাচ্ছি। এমনকি সাইবেরিয়ার শহরগুলোতেও এত বেশি সংখ্যক মানুষকে আটকের ঘটনা খুবই বিরল। যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ প্রসঙ্গে রাশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, বিক্ষোভের ফলে রোববার শুধু মস্কোতেই ১ হাজার ৭শ জনকে আটক করা হয়েছে। এর আগে রোববার ইউক্রেনে হামলার বিরুদ্ধে রাশিয়াজুড়ে বিক্ষোভে নামার ডাক দেন পুতিনবিরোধী কারাবন্দি নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনি। রাশিয়াজুড়ে বিক্ষোভ নিয়ে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, যদিও রাশিয়ান আইনে অনুমতিপত্র বা নিষেধাজ্ঞা শব্দগুলোর ব্যবহার এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। বাস্তবে রাশিয়ায় যেকোনো ধরনের সমাবেশের জন্য অনুমোদন নিতে হয়।