November 29, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Saturday, September 11th, 2021, 7:06 pm

লেবাননে নাজিব মিকাতির নেতৃত্বে নতুন সরকার ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক :

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বিস্ফোরণের জেরে সরকার পতনের প্রায় এক বছর পর দেশটির নতুন সরকার ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন এ সরকারে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন নাজিব মিকাতি। খবর আল-জাজিরার। স্থানীয় সময় শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন এ সরকার ঘোষণা করেন। পরে রাষ্ট্রপতি ও নতুন প্রধানমন্ত্রী নাজিব মিকাতি এ-সংক্রান্ত ডিক্রিতে সই করেন। এ সময় দেশটির সংসদের স্পিকার নাবি বেরিও উপস্থিত ছিলেন। দেশটির বৈরুতে রাসায়নিক গুদামে ভয়াবহ বিস্ফোরণের জেরে সরকার পতন হয়। এরপর থেকে সেখানে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। নতুন সরকার গঠনের মধ্য দিয়ে সেই অচলাবস্থার অবসান হলো। নতুন প্রধানমন্ত্রী নাজিব মিকাতি লেবাননের সবচেয়ে ধনাঢ্য ব্যক্তি। তিনি এর আগেও দুইবার লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। নতুন সরকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েছেন আব্দুল্লাহ বুহাবিব। অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ইউসুফ খালিল এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী হয়েছেন ফিরাস আবাইদ। এ ছাড়া উপপ্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সায়াদা আঁশ শামি। সাবেক প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি সরকার গঠন করতে ব্যর্থ হওয়ায় গত ২৬ জুলাই নাজিব মিকাতিকে সরকার গঠনের দায়িত্ব দেন প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। এদিকে, শুক্রবার নতুন সরকার ঘোষণা হওয়ার পর, সব রাজনীতিবিদদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নাজিব। এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, নবগঠিত সরকারে সবপক্ষের প্রতিনিধি রয়েছেন। ঐক্য ও সংহতির মাধ্যমে দেশের সংকট সমাধান করতে হবে। মনে রাখতে হবে, পরিস্থিতি খুব কঠিন। কিন্তু আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে সংকট কাটিয়ে ওঠা অসম্ভব হবে না। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজনৈতিক সংস্কারের দাবিতে প্রায় দুই বছর ধরে চলা বিক্ষোভে টালমাটাল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে দেশটিতে। সরকার গঠন নিয়ে জটিলতার মধ্যে লেবাননের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি অত্যন্ত নাজুক হয়ে পড়েছে। দেখা দিয়েছে ওষুধ ও তীব্র জ¦ালানি সংকট। দেশটিতে মুদ্রার মান পড়ে গেছে। বেকারত্ব, মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে। ২০২০ সালের ৪ অগাস্ট বৈরুত বন্দরের রাসায়নিক গুদামে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এর কয়েকদিন পরই তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াবের সরকার পতন হয়। তারপর থেকে লেবাননে কার্যকর কোনো সরকার ছিল না।