May 16, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, April 15th, 2022, 7:53 pm

লেভানদোভস্কির সঙ্গে চুক্তি, গুঞ্জন উড়িয়ে দিলো বার্সেলোনা

অনলাইন ডেস্ক :

বায়ার্ন মিউনিখ ফরোয়ার্ড রবের্ত লেভানদোভস্কিকে আসছে গ্রীষ্মেই বার্সেলোনা দলে ভেড়াতে চায় বলে গুঞ্জন রয়েছে। দুই পক্ষ চুক্তির খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছে, এমন খবরও কিছু গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। তবে এসবের কোনো সত্যতা নেই বলে মন্তব্য করেছেন কাতালান ক্লাবটির স্পোর্টিং ডিরেক্টর মাতেও আলেমানি। এক সাক্ষাৎকারে আলেমানি দাবি করেন, এসব খবর কেবলই অনুমান নির্ভর। কয়েক মৌসুম ধরেই বায়ার্নের জার্সিতে অসাধারণ খেলে চলেছেন লেভানদোভস্কি। গোলের পর গোল করছেন এই তারকা। ২০২০ ও ২০২১ সালে জিতেছেন ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার। চলতি মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলে এরইমধ্যে ৪৭ গোল করেছেন। বুন্ডেসলিগায় এখন পর্যন্ত ৩২ গোল করে সবার উপরে লেভানদোভস্কি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও ১৩ গোল করে শীর্ষে। ৩৩ বছর বয়সী এই পোলিশ তারকাকে স্বাভাবিকভাবেই হারাতে চাইবে না বায়ার্ন। জার্মান ক্লাবটি এরইমধ্যে জানিয়েও দিয়েছে, গ্রীষ্মকালীন দলবদলে বিক্রি করা হবে না লেভানদোভস্কিকে। লেভানদোভস্কির সঙ্গে বায়ার্নের চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে ২০২৩ সালের জুনে। দুই পক্ষের নতুন চুক্তির বিষয়ে অবশ্য এখনো কিছু শোনা যায়নি। এরমধ্যেই আসছে গ্রীষ্মকালীন দলবদলে বার্সেলোনা ছন্দে থাকা এই স্ট্রাইকারকে দলে ভেড়াতে চায় বলে খবর বেরোয়। বায়ার্নের প্রধান নির্বাহী অলিভার কান অবশ্য বলে দিয়েছেন পোলিশ তারকাকে ছাড়ার প্রশ্নই উঠে না। “বায়ার্ন পাগল নয় যে মৌসুমে ৩০ থেকে ৪০ গোল করা একজন খেলোয়াড়ের দলবদল নিয়ে আলোচনা করবে। রবের্তের সঙ্গে আমাদের একটি চুক্তি আছে। আমরা সবসময় বলেছি যে, আমরা (চুক্তি নবায়নের) আলোচনা শুরু করব, এটা আমরা অনেক আগেই করেছি।” এবার বার্সেলোনার স্পোর্টিং ডিরেক্টরও জানালেন লেভানদোভস্কির সঙ্গে চুক্তির খবর কেবলই গুঞ্জণ। আইনট্রাখট ফ্র্যাঙ্কফুর্টের বিপক্ষে ইউরোপা লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচ মাঠে গড়ানোর আগে এক সাক্ষাৎকারে এ দাবি করেন তিনি। “পোলিশ ফরোয়ার্ডের সঙ্গে আমাদের কোনো চুক্তি নেই। এটা প্রেস থেকে অনুমান নির্ভর খবর মাত্র, যা পৃষ্টা পূরণ করার জন্য খুবই ভালো।” “এটা সত্য নয়। যদি আমরা তাকে চাই, তাহলে প্রথমেই আমরা তার ক্লাবের সঙ্গে কথা বলবো।”