March 3, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, February 8th, 2023, 8:25 pm

শতবর্ষী ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজনের দৌড়ে ৪ দেশ

অনলাইন ডেস্ক :

১৯৩০ সালে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজিত হয়েছিল। তখন অবশ্য টুর্নামেন্টটির নাম ছিল জুলেরিমে কাপ। সেই হিসাবে ২০৩০ সালে অনুষ্ঠিত হবে ফিফা বিশ্বকাপের শতবর্ষী আসর। যদিও ওই আসরের আয়োজক এখনও নির্ধারিত হয়নি। ৯৩ বছর আগে ফিফা বিশ্বকাপের প্রথম আসর বসেছিল উরুগুয়েতে। গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ খ্যাত টুর্নামেন্টটির শতবর্ষী আসরও ল্যাটিন আমেরিকায় অনুষ্ঠিত হতে পারে- এমন গুঞ্জন আরও আগে থেকেই ছিল। সেই গুঞ্জন বাস্তবে রূপ নেবে নাকি, তা সময়ই বলবে। তবে ল্যাটিন আমেরিকা ঠিকই ২০৩০ বিশ্বকাপ আয়োজক হওয়ার দৌড়ে নাম লিখিয়েছে। বেশ কয়েক বছর আগেই ২০৩০ বিশ্বকাপের স্বাগতিক হওয়ার ইচ্ছের কথা জানিয়েছিল উরুগুয়ে এবং আর্জেন্টিনা। পরে তাদের সঙ্গে যোগ দেয় চিলি এবং প্যারাগুয়েও। অবশেষে এলো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। ফুটবলকে খেলাটির জন্মভূমিতে ফেরানোর জন্য যৌথভাবে ২০৩০ সালের ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজনের আবেদন জানিয়েছে উরুগুয়ে, আর্জেন্টিনা, চিলি ও প্যারাগুয়ে। গত মঙ্গলবার আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে (এএফএ) এক অনুষ্ঠানে চার দেশের ফুটবল কর্মকর্তা ও দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশনের (কনমেবল) সভাপতি আলেহান্দ্রো দোমিনিগেসের উপস্থিতিতে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়। কনমেবল সভাপতি আলেহান্দ্রো দোমিনিগেস বলেন, ২০৩০ বিশ্বকাপ সাধারণ কোনো বিশ্বকাপ নয়। শতবর্ষী বিশ্বকাপ হিসেবে এ বিশ্বকাপকে ঘিরে উদযাপন হওয়া উচিত। ফিফা দক্ষিণ আমেরিকাকে বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ দিয়ে মহত্ত্বের পরিচয় দিতে পারে। এএফএ সভাপতি ক্লাউদিও তাপিয়া বলেন, “বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সব দক্ষিণ আমেরিকানদের স্বপ্নের প্রতিনিধি হয়ে আমরা এ আবেদন জানিয়েছি। শুধুমাত্র প্রথম সংস্করণের শতবর্ষ বলে না; আমরা যে আবেগের মাধ্যমে ফুটবল নিয়ে বাঁচি সে কারণেও।” সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে আর্জেন্টিনার রাষ্ট্রপতি আলবার্তো ফার্নান্দেজ বলেন, “ল্যাটিন আমেরিকায় ফিফা বিশ্বকাপের শতবর্ষী আসর আয়োজনের দৌড়ে বলিভিয়াকেও যোগ দেওয়ার আহ্বান জানানো হবে।” দক্ষিণ আমেরিকার এ চার দেশের মধ্যে উরুগুয়ে, আর্জেন্টিনা এবং চিলি ইতোপূর্বে একবার করে ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজন করেছে। ১৯৩০ সালে উরুগুয়ের মাটিতে বসেছিল ফিফা বিশ্বকাপের প্রথম আসর। পরবর্তীতে ১৯৬২ এবং ১৯৭৮ সালে যথাক্রমে চিলি ও আর্জেন্টিনায় বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজিত হয়েছিল। তবে প্যারাগুয়েতে এর আগে ফিফা বিশ্বকাপের কোনো আসর বসেনি। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে ল্যাটিন আমেরিকায় এখস পর্যন্ত সর্বশেষ ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজিত হয়েছে। বিশ্বকাপ ফুটবলের ওই আসরের স্বাগতিক ছিল ব্রাজিল। একমাত্র ল্যাটিন আমেরিকান দেশ হিসেবে একাধিকবার বিশ্বকাপ আয়োজনের কীর্তিও আছে শুধুমাত্র ব্রাজিলের দখলেই। ২০৩০ বিশ্বকাপের স্বাগতিক হওয়ার প্রতিযোগিতায় দক্ষিণ আমেরিকার এ চার দেশের সঙ্গে বড় প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে স্পেন ও পর্তুগালের সঙ্গে। ইউরোপের আইবেরিয়ান অঞ্চলের দেশ দুটি সবার আগে বিশ্বকাপের শতবর্ষী আসর আয়োজনের আবেদন করে। বিশ্বকাপের ২৪তম আসর আয়োজনের দৌড়ে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা আছে মরক্কো ও সৌদি আরবও। তবে শতবর্ষী বিশ্বকাপের স্বাগতিক কারা হবে, তা জানা যাবে ২০২৪ সালে।