July 23, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, February 5th, 2024, 3:30 pm

শ্রীবরদীতে সংস্কারের অভাবে বেহাল অডিটরিয়াম: ব্যবহারের অনুপযোগি

জেলা প্রতিনিধি, শেরপুর (শ্রীবরদী):

শেরপুর জেলা পরিষদের বাস্তবায়নে ২০১০ সালে শ্রীবরদীতে অডিটরিয়াম কাম-কমিউনিটি সেন্টার উদ্বোধন করা হয়। পরবর্তীতে ২০১১ সালে অডিটরিয়ামটির নামকরণ করা হয় শহীদ শাহ্ মো. মুতাসিম বিল্লাহ খুররম বীর বিক্রম স্মৃতি অডিটরিয়াম। কিন্তু যে উদ্দেশ্যে অডিটিরিয়ামটি নির্মাণ করা হয় তা ভেস্তে যায় শুরু থেকেই। নির্মাণ ত্রুটি, সাউন্ড সিস্টেম জটিলতা সহ নানা সমস্যা কারণে শুরু থেকেই ব্যবহারের অনাগ্রহ দেখা যায়। দীর্ঘদিন থেকে অবহেলা, অযত্ন ও সংস্কারের অভাবে বর্তমানে অডিটিরিয়ামটি ব্যবহার বন্ধ রয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় বৃষ্টি হলেই ভিতের পানি পড়ে। সিলিং খুলে পড়ে গেছে। ফ্যান ও বাতিগুলো অচল হয়ে আছে। অধিকাংশ চেয়ার ভেঙ্গে গেছে। নষ্ট হয়ে গেছে দেওয়ালের পলেস্তার। টয়লেটগুলো ব্যবহারের অনুপোযোগি। অডিটরিয়ামের চারদিকের গ্লাসগুলো ভেঙ্গে গেছে। বাথরুম ও বিভিন্ন কক্ষের দরজাগুলো অকেজো। সাউন্ড সিস্টেম সহ বিভিন্ন মূল্যবান সামগ্রী নষ্ট হয়ে গেছে। বৃষ্টির পানি পড়ায় দেওয়ালের বিভিন্ন জায়গায় শেওলা পড়েছে। চারদিকের পরিবেশ নোংরা-আবর্জনায় ভরপুর। অব্যবস্থাপনা ও সুষ্ঠু তদারকির অভাবে বর্তমানে জরাজীর্ণ হয়ে ভূতুড়ে ঘরে পরিণত হয়েছে অডিটরিয়ামটি। তাই শ্রীবরদীবাসী অডিটরিয়ামের সুফল পাচ্ছে না।

স্থানীয় ও সচেতন মহল জানান, যে উদ্দেশ্যে এই অডিটরিয়াম নির্মাণ করা হয়েছে তা শুরুতেই ভেস্তে গেছে। সঠিক সাউন্ড সিস্টেম ব্যবহার না করায় শব্দের প্রতিধ্বনি হয়। যার কারণে সভা-সমাবেশ সহ কোন সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা যায় না। ফলে ঝিমিয়ে পড়েছে শ্রীবরদীর সাংস্কৃতিক অঙ্গন। জনস্বার্থে ও সরকারি সম্পত্তি রক্ষায় অডিটরিয়ামটি জুরুরী ভিত্তিতে সংস্কার করে ব্যবহার উপযোগি করা দাবী স্থানীয়দের।

জেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ২০০৭-০৮ অর্থবছরে ১ কোটি ১৭ লক্ষ ৬৯ হাজার ৬৫১ টাকা ব্যায়ে ৫০০ আসন বিশিষ্ট শ্রীবরদী অডিটরিয়াম কাম-কমিউনিটি সেন্টারটির কাজ শুরু হয়। পরবর্তীতে ২০১০ সালে সেটি উদ্বোধন করেন তৎকালীন সংসদ সদস্য প্রকৌশলী এ.কে.এম ফজলুল হক। অতিসত্বর সংস্কারের উদ্যোগ না নিলে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে যেতে পারে কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত অডিটরিয়ামটি। সাংস্কৃতিক কর্মী সুন্দর আলী বলেন, শ্রীবরদী সাংস্কৃতিক চর্চা করার জন্য কোন জায়গা নেই। অডিটরিয়াম চালু থাকলে সাংস্কৃতিক অঙ্গন অনেক চাঙ্গা থাকতো। দ্রুতই এটি সংস্কার করলে শ্রীবরদীর সাংস্কৃতিক অঙ্গন অনেকটাই এগিয়ে যাবে।

শেরপুর জেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেবুন নাহার শাম্মী বলেন, বরাদ্দ না থাকায় সংস্কার সম্ভব হচ্ছে না। বরাদ্দ পেলে দ্রুতই সংস্কার করা হবে।

শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনের সংসদ সদস্য এডিএম শহিদুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে কথা হয়েছে। তিনি অডিটরিয়ামটি সংস্কার, আধুনিকায়ন ও সাউন্ড সিস্টেম জটিলতা নিরসনের লক্ষে প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। আশা করছি দ্রুতই কাজ শুরু হবে। এতে শ্রীবরদীবাসী অডিটরিয়ামের সুবিধা ভোগ করতে পারবে।