October 6, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, September 13th, 2022, 7:47 pm

সাবেক ক্লাব প্রসঙ্গে যা বললেন হালান্ড

অনলাইন ডেস্ক :

চ্যাম্পিয়নস লিগে এবার নিজের সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে মাঠে নামছে ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে এই মৌসুমে গোলবন্যা বইয়ে দেয়া আর্লিং হালান্ড। কাল রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগে গ্রুপ পর্বের লড়াইয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে এতিহাদ স্টেডিয়ামে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে আতিথ্য দেবে সিটিজেনরা। এই মুহুর্তে বিপক্ষ দলগুলোর গোলমুখে ত্রাস হয়ে ওঠা হালান্ডকে গত মৌসুম শেষেই ডর্টমুন্ড থেকে নিজেদের দলে ভিড়িয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। হালান্ডকে ছাড়া ডর্টমুন্ডের পারফরম্যান্সে ঘাটতি হয়েছে কিনা তা সময়ই বলে দিবে। কিন্তু সিটির হয়ে সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে প্রথমবারের মত মাঠে নামার সুযোগটি পুরোপুরি কাজে লাগাতে মুখিয়ে আছেন হালান্ড। ডর্টমুন্ড কি হারিয়েছে তা প্রমান করতেই যেন এই ম্যাচে মাঠে নামতে যাচ্ছেন হালান্ড। এক কথায় সাবেক ক্লাবকে যেন একটা শিক্ষাই দিতে চান বর্তমান সময়ের সবচেয়ে ভয়ংকর এই স্ট্রাইকার। প্রায় আড়াই বছরের ডর্টমুন্ড ক্যারিয়ারে ৮৯ ম্যাচে ৮৬ গোল করে বিশ্ব ফুটবলে নজড় কেড়েছেন ২২ বছর বয়সী হালান্ড। সিটির হয়ে মাত্র ৮ ম্যাচেই নিজেকে প্রমান করে ফেলেছেন। ইংলিশ চ্যাম্পিয়নদের হয়ে প্রিমিয়ার লিগে টানা দুই হ্যাটট্রিকসহ সব মিলিয়ে করেছেন ১২ গোল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সেভিয়ার বিপক্ষে ৪-০ গোলের জয়ের ম্যাচটিতেও করেছেন দুই গোল। সিটি বস পেপ গার্দিওলা জানিয়েচ্ছেন, ‘ক্যারিয়ারে তার নাম্বারগুলো প্রায় একই, শুধুমাত্র এখানে নয়, আগের দলেও (ডর্টমুন্ড) সে একই ধরনের যোগ্যতা দেখিয়েছে। গোল করার অসাধারণ গুণ তার মধ্যে রয়েছে।’ বুন্দেসলিগার দলটি থেকে এই মৌসুমের শুরুতে ৬০ মিলিয়ন ইউরোতে সিটিতে পাড়ি জমিয়েছেন হালান্ড। ইউরোপের অন্যতম সেরা এই স্ট্রাইকারের ক্যারিয়ারের শুরুতে তাকে পরিনত হবার সব ধরনের সুযোগ করে দিয়েছিল ডর্টমুন্ড। কিন্তু ইংলিশ ক্লাবের সাথে আর্থিক প্রতিযোগিতায় আর পেরে উঠেনি জার্মান জায়ান্টরা। যে কারণে অনেকটা বাধ্য হয়েই দলের সেরা খেলোয়াড়কে ছেড়ে দিতে হয়েছে। বিশেষ করে দীর্ঘ মেয়াদে হালান্ডকে ধরে রাখার মত সামর্থ্য ডর্টমুন্ডের ছিলনা। কাল রাতে ইউরোপের মঞ্চে সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে হালান্ড জ¦লে উঠবেন কিনা তা সময়ই বলে দেবে। তবে যদি তেমনটি হয় তাহলে ডর্টমুন্ডের জন্য দুঃস্বপ্নের রাতই হয়তো অপেক্ষা করছে বলা যায়।