July 16, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, January 10th, 2024, 4:17 pm

সাভারে চাঁদা নেয়ার সময় হাতেনাতে আটক

জেলা প্রতিনিধি, সাভার:

সাভারে চাঁদাবাজির সময় আব্দুর রাজ্জাক (৪৫) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত যুবক দিনাজপুর জেলার চিনির বন্দর থানার হাসিমপুর মহল্লার মনসুর আলীর ছেলে।

বুধবার দুপুরে তাকে আদালতে প্রেরণ করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানা পুলিশ। এর আগে, মঙ্গলবার রাতে সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ডের ভরসা মার্কেটের সামনে চাঁদা উত্তলনের সময় স্থানীয়রা ওই চাঁদাবাজকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সাভারের বিরুলিয়া রোডের ভরসা মার্কেটের সামনের রাস্তার পাশে দোকান বসিয়ে ও বিভিন্ন অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় করে আসছিল একটি চক্র। সোমবার সকালে ঢাকা ১৯ আসনে থেকে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সাংবাদিক সম্মেলন করে সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে থাকার ঘোষণা দেওয়ার পরদিনই প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাতেও ফুটপাতের পাশের প্রতিটি দোকান থেকে চাঁদার টাকা উত্তোলন করেছিলেন আব্দুর রাজ্জাকসহ চক্রটির ৪/৫ জন সদস্য। দোকানীরা চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করার পর দোকানীদের সাথে খারাপ ব্যবহারসহ বিভিন্ন হুমকি দিয়ে চাঁদা আদায় করেছে। এ ঘটনায় তাদেরকে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মোকলেস নামে এক ফল ব্যবসায়ীকে মারতে উদ্যত হয় ও জোরপূর্বক ৭০ টাকা চাঁদা নেন।

এ ঘটনায় আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় চাঁদাবাজ রাজ্জাককে হাতেনাতে আটক করেন ভুক্তভোগী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে এই চাঁদাবাজকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে চাঁদা হিসেবে উত্তোলন করা ২২৪০ টাকা জব্দ করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দোকানী বলেন, রিকশা থেকে শাহীন নামে চাঁদা আদায় করে আর আমাদের কাছ থেকে ওই চাঁদাবাজ রাজ্জাক নামে চাঁদা আদায় করে। দুই নামের বিষয়ে চাঁদাবাজ রাজ্জাক এ প্রতিবেদককে বলেন, আমি একাই শাহীন ভাই,রাজ্জাক ভাই। এই দুই নামই আমার।

গ্রেপ্তারকৃত আব্দুর রাজ্জাক জানান, আক্রাইনের চেয়ারম্যান সেলিম মন্ডলের ভাই রুবেল মন্ডলের নিয়মিত চাঁদার টাকা তিনি কালেকশন করেন। ফুটপাতের বিভিন্ন দোকান থেকে ৪০, ৭০ ও ২০০ টাকা হারে চাঁদা উঠাতেন। এমনকি কোনো কোনো দোকান থেকে ৩০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করা হয়। প্রতিটি অটোরিকশা থেকে ১০ টাকা করে দিনে দুইবার তুলতেন চাঁদা।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান বলেন, আটকৃতকে চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশের তৎপরতা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।