October 7, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, September 6th, 2022, 7:36 pm

‘সিটিকে হলান্ড একা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতাতে পারবে না’

অনলাইন ডেস্ক :

প্রিমিয়ার লিগে শুরুর পথচলাতেই যেভাবে আলো ছড়াচ্ছেন আর্লিং হলান্ড, তা যেন সবার প্রত্যাশাকেও ছাড়িয়ে গেছে। ৬ ম্যাচেই করে ফেলেছেন ১০ গোল। তাকে পেয়ে ম্যানচেস্টার সিটির আক্রমণভাগ হয়ে উঠেছে আরও বিধ্বংসী। সমর্থকদের মনে স্বপ্ন বাসা বাঁধতে শুরু করেছে, হলান্ডের কাঁধে চেপে অধরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা এবার জিতবেই প্রিয় দল। দলটির কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা অবশ্য নরওয়ের এই ফরোয়ার্ডকে ঘিরে সবার বাড়তে থাকা চাওয়ায় লাগাম টানতে বললেন। স্কোয়াডের সবার উদ্দেশ্যে দিলেন সতর্কবার্তা। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের মিশনে এক হলান্ডের ওপর নির্ভর করলে তার চড়া মাশুল দিতে হবে বলে মনে করেন তিনি। গ্রীষ্মের দলবদলে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে সিটিতে যোগ দিয়ে নতুন সতীর্থদের সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নিয়েছেন হলান্ড। অগাস্টের প্রথম সপ্তাহে প্রিমিয়ার লিগে অভিষেক ম্যাচে ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের বিপক্ষে করেন জোড়া গোল। তার নৈপুণ্যেই সিটি ম্যাচ জেতে ২-০ ব্যবধানে। সেই থেকে গত এক মাসে খেলা আরও পাঁচ ম্যাচে কেবল একটিতে জালের দেখা পাননি হলান্ড। গোল করা চার ম্যাচের দুটিতে করেন হ্যাটট্রিক, টানা দুই রাউন্ডে। ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে আপাতত তার ধারেকাছে নেই কেউ। ১০ গোল নিয়ে সবার ওপরে তিনি, ৪টি কম নিয়ে দুইয়ে আলেকসান্দার মিত্রোভিচ। প্রতিযোগিতাটির ইতিহাসে যৌথভাবে দ্রুততম ১০ গোলের রেকর্ডও গড়েছেন তিনি। এই ছয় ম্যাচে আরও কয়েকটি কীর্তি গড়েছেন হলান্ড। এবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ। সাবেক দুই ক্লাবের হয়ে ইউরোপ সেরা প্রতিযোগিতাটিতে এর আগে ২৩ গোল করেছেন হলান্ড। তাই সবচেয়ে বড় মঞ্চেও আলো ছড়ানোর সামর্থ্য যে তার আছে, সেটা পরিসংখ্যানেই পরিষ্কার। তারপরও তরুণ শিষ্যের কাঁধে দলের বোঝা কিছুতেই চাপাতে চান না গুয়ার্দিওলা। গতবারের সেমি-ফাইনালিস্ট দলটির এবারের আসর শুরু হবে সেভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। স্প্যানিশ ক্লাবটির মাঠে বাংলাদেশ সময় রাত একটায় শুরু হবে ম্যাচটি। আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে দলের অন্য সদস্য এবং সমর্থকদের উদ্দেশ্যে গুয়ার্দিওলা বললেন, হলান্ডকে নিয়ে তাদের প্রত্যাশার জোয়ারে বাঁধ দিতে। “আর্লিংয়ের কাঁধে ভর করে এগিয়ে যেতে চাইলে আমরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতব না। গোল করার জন্য আমরা তাকে সুযোগ করে দেব। তাকে আমাদের দলে যোগ দেওয়ার জন্য মানিয়েছি, কারণ বুঝতে পেরেছিলাম যে বেশি স্ট্রাইকার আমাদের দলে নেই।” “আমাদের খেলার ধরনের সঙ্গে সে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। সে হুলিয়ান আলভারেস ও অন্যান্যের মতো ভালোভাবে মানিয়ে নিয়েছে। আমি বুঝতে পারছি যে সবাই আর্লিংকে নিয়ে কথা বলছে। কিন্তু আমারৃনতুন পাঁচ জন খেলোয়াড় আছে এবং তাদের সবার দলে জায়গা পাকা করে নেওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ।” হলান্ডের নৈপুণ্যে দারুণ কিছুর সম্ভাবনা দেখেন গুয়ার্দিওলাও। তবে ফুটবলে কারো একার পক্ষে যে দলকে জেতানো সম্ভব নয়, সেটাই বারবার স্মরণ করিয়ে দিতে চাইলেন তিনি। “আশা করি, আমরা তাকে সাহায্য করতে পারব। তবে আমরা কেবল আর্লিংকে নিয়ে জিতব না এবং তার একার জন্য হারবও না। তার বিশেষ গুণ আছে এবং হয়তো সে আমাদের কিছু সমস্যার সমাধান করবে। কিন্তু আমরা যদি ভালো না খেলি, তাহলে আমরা ম্যাচ জিততে পারব না।”