June 13, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, April 22nd, 2024, 3:06 pm

সিলেট জুড়ে বোরো ধান কাটা শুরু সর্বত্র উৎসবের আমেজ

জেলা প্রতিনিধি, সিলেট :

সিলেট জুড়ে বোরো ধান কাটা শুরু হয়েছে। চারিদিকে মৌ মৌ ধানের গন্ধে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। সিলেটের হাওর এলাকায় তাকালে হলুদের সমারোহ দৃষ্টি কাড়ায়। এ বছর বৈশাখের আগেই সকল ধান ঘরে উঠানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন কৃষকরা।সিলেটে শহর থেকে অনেকেই গ্রাম গঞ্জে চলে যাচ্ছেন ধান উঠাতে। কৃষকরা চাচ্ছেন বন্যার আগেই ধান ঘরে তুলতে।

এবার পাহাড়ি ঢল আর বৈশাখ মাসে ভারী বর্ষণ না হওয়ায় বাঁধ ভাঙার ঘটনাও ঘটেনি। ২০২৩ সালের চেয়ে ২০২৪ সালে আবহাওয়া কৃষাণ কৃষাণিদের অনুকূলে থাকায় সিলেটে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে।

সিলেট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে বলছে, জেলার ইতোমধ্যে ৩৫ এবং নন হাওরে শতকরা ৫ ভাগ ধান কাটা শেষ হয়ে গেছে। আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে শতভাগ ধান কাটা হয়ে যাবে। এছাড়া ধান কাটাতে প্রযুক্তির ব্যবহার বেড়েছে। হারভেস্টার ও রিপার মেশিন দিন-রাতে হাওড়ে ধান কাটার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। সেজন্য শ্রমিক সংকট কৃষকদের বাধার কারণ হতে পারেনি। হারভেস্টার মেশিনে ধান কেটে সঙ্গে সঙ্গে মাড়াই করে একেবারে খড়কুটো পরিষ্কার করে দিয়েছে। এতে কৃষকদের কম সময়ে ধান তোলার সঙ্গে সঙ্গে আর্থিকভাবেও সাশ্রয় হয়েছে। যার ফলে ডিজিটাল সুবিধা নিতে পারছেন কৃষকেরা।

কৃষকরা বলছেন, গত বছর প্রাকৃতিক দুর্যোগে কারণে বেশ ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন তারা। তবে এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলন বেশ ভাল হয়েছে। হাওড়ের ধান কাটা প্রায় শেষ। শ্রমিক সংকট থাকলেও হারভেস্টার মেশিন ধান কাটা অনেক সহজ করে দিয়েছে। তবে কিছু কিছু এলাকায় ব্রি-২৮ জাতের ধান ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হয়েছে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারন অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছর সিলেট জেলায় ৮৫ হাজার ৮৫০ হেক্টর জমিতে চাষাবাদের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিলো। ইতিমধ্যে ৮৭ হাজার ৪ শত ৫০ হেক্টর অর্জন করা হয়েছে।

গোয়াইনঘাট উপজেলা কৃষি অফিসার রায়হান পারভেজ রনি জানান, এ বছর গোয়াইনঘাট উপজেলায় ৩ হাজার ৮৮০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে এ উপজেলায় হাওর গুলোতে ৪৪ ভাগ এবং নন হাওরে ৪ ভাগ ধান কাটা শেষ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আগামী দু সপ্তাহের মধ্যে বাকি ধান কাটা শেষ হয়ে যাবে।

সিলেট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (পিপি) মোহাম্মদ আনিছুজ্জামান জানান, কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবং সময়মতো ধান ঘরে তুলতে পারলে এ বছর বোরোতে রেকর্ড উৎপাদন হবে। এবছর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮৫ হাজার ৮৫০ হেক্টর । সবকিছু ঠিক থাকলে সিলেটে বোরো ধান উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়াবে।
আনিছুজ্জামান জানান, সিলেট জেলায় এবছর ৮৫ হাজার ৮৫০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল তবে ৮৭ হাজার ৪৫২ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের চাষাবাদ হয়েছে। ইতিমধ্যে হাওড়ে ৩৫ ভাগ ধান কাটা শেষ আর হাওড়ের বাইরে ধান কাটা শেষ ৫ ভাগ।