May 29, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, March 8th, 2024, 8:08 pm

সুয়ারেসের গোলে মায়ামির নাটকীয় ড্র

অনলাইন ডেস্ক :

ম্যাচজুড়েই গ্যালারি থেকে ভেসে আসছিল ‘মেসি, মেসি’ চিৎকার। শেষদিকেও ছিল সেই গর্জন। তবে বাজিমাত করলেন লুইস সুয়ারেস। যোগ করা সময়ে হেড থেকে গোল করে ইন্টার মায়ামিকে সমতায় ফেরালেন এই ফরোয়ার্ড। মেসিও অবশ্য হতাশ করেননি। তার দারুণ এক গোলেই তো লড়াইয়ে ফিরেছিল দল! দুই তারকার গোলে কনক্যাকাফ চ্যাম্পিয়ন্স কাপে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ন্যাশভিল এসসির সঙ্গে দুই গোলে পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলে ড্র করতে পেরেছে ইন্টার মায়ামি। কানাডার উইঙ্গার জ্যাকব শ্যাফেলবার্গের দুই গোলে দারুণ এক জয়ের আশা জাগিয়েছিল ন্যাশভিল। কিন্তু ৫২তম মিনিটে বক্সের একটু বাইরে থেকে গোল করেন মেসি। নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষে বাড়তি সময় দেওয়া হয়েছিল সাত মিনিট। সেটির পঞ্চম মিনিটে গোল করেন সুয়ারেস।

৮৩তম মিনিটে ন্যাশভিল অবশ্য আরও একবার বল পাঠিয়েছিল জালে। তবে ভিএআর দেখে অফসাইডের জন্য গোল দেননি রেফারি। ড্র হলেও প্রতিপক্ষের মাঠে মহামূল্য দুটি গোল আদতে এগিয়ে রাখছে মায়ামিকেই। দ্বিতীয় লেগের লড়াই আগামী বুধবার। মেসি যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলে পা রাখার পর সব মাঠেই দেখা যায়, ঘরের দল ছাপিয়ে মায়ামির জার্সি পরা দর্শকই বেশি থাকে গ্যালারিতে। গত অগাস্টে এই ন্যাশভিলের মাঠে লিগস কাপের ফাইনালে তো টিকিট নিয়ে কাড়াকাড়ি পড়ে গিয়েছিল। এবার এই ম্যাচে অবশ্য গ্যালারি পুরোপুরি ভরেনি।

তবে যথারীতি ঘরের দলের চেয়ে মায়ামির গোলাপি জার্সির প্রাধান্যই ছিল বেশি। খেলার শুরু থেকেই ‘মেসি মেসি’ রব উঠেছে বারবার। ম্যাচের ৭১ শতাংশ সময় বল ছিল মায়ামির পায়েই। কিন্তু শুরুতে আসল কাজটি করে ন্যাশভিল। ম্যাচের চতুর্থ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ব্যবধান বাড়ায় তারা। ত্রয়োদশ মিনিটে মেসির একটু শট অল্পের জন্য বাইরে দিয়ে চলে যায়। সেটিতে গোল না হওয়ায় অবাক হয়ে যান তিনি নিজেই। ৩৭তম মিনিটে বক্সের মাথা থেকে তার শট আটকে দেন ন্যাশভিলের গোলকিপার জো উইলস।

শেষ পর্যন্ত তার অপেক্ষার অবসান ৫২তম মিনিটে। বক্সের একটু বাইরে সুয়ারেসের কাছ থেকে বল পেয়ে প্রতিপক্ষের তিনজনের মাঝখান থেকে আচমকা শট নেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা। ডাইভ দিয়ে ঠেকাতে পারেননি গোলকিপার। এরপর আর উল্লেখযোগ্য সুযোগ তিনি পাননি। গোলের জন্য মায়ামিকে অপেক্ষা করতে হয় শেষ সময় পর্যন্ত। বক্সের ভেতর থেকে সাবেক বার্সেলোনা সতীর্থ সের্হিও বুসকেতসের ক্রসে দুই ডিফেন্ডারের মাঝে ফাঁকায়থাকা সুয়ারেস আলতো হেডে জালে জড়ান বল।