December 8, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, November 1st, 2022, 7:59 pm

সোহেল রানার চিকিৎসা নিয়ে যা বললেন তার ছেলে

অনলাইন ডেস্ক :

আজ মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে অভিনেতা সোহেল রানার চোখের অস্ত্রোপচার করা হবে। স্থানীয় সময় বিকেল ৩ টার দিকে অস্ত্রোপচার শুরু হবে বলে সোমবার দুপুরে সিঙ্গাপুর সিটি থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অভিনেতার ছেলে মাশরুর পারভেজ। বাংলাদেশের একটি বেসরকারি হাসপাতালে অভিনেতা সোহেল রানার চোখের ছানি অপারেশন করা হয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসক অস্ত্রোপচার সফল দাবি করলে সেখানে বড় ধরনের ত্রুটি থেকে যায়- এমনটাই দাবি করছেন সোহেল রানার ছেলে মাশরুর পারভেজ। এজন্য তিনি আইনি ব্যবস্থাও নেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানান। গতকাল সোমবার দুপুরে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে মাশরুর বলেন, ‘আমার বাবাকে ছানি অপারেশনের জন্য রাজধানীর নামকরা বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল। ছানি অপারেশনের পরেই চোখে জটিলতা দেখা দেয়। তারা আমাকে যে ডিসচার্জ পেপার দেয় সেখানে বলা হয়েছে সফল অপারেশন। এও বলেছিল আরেকটা লেন্স বসাতে হবে। ’মাশরুর বলেন, ‘তারা দ্বিতীয় সার্জারি করে তাদের ভুলকে পাশ কাটাতে চাইছে, কিন্তু এটা আমি কেন হতে দেব? কেন এত ঝুঁকি নেব? তারা ভুল করেছে। মাউন্ট এলিজাবেথএর চিকিৎসকেরা বিষয়টি দেখেছেন। তাই দ্রুত অপারেশনের ব্যবস্থা নিয়েছেন। ’গত রোববার রাতের ফ্লাইটে বাবাকে নিয়ে সিঙ্গাপুর গিয়েছেন মাশরুর পারভেজ। সঙ্গে সোহেল রানার স্ত্রীও রয়েছেন। মাশরুর বলেন, ‘আজ মঙ্গলবার বিকেল ৩ টায় অপারেশন। এখন আমি আর কিছুই বলতে চাই না। ভালোয় ভালোয় অপারেশনটা হয়ে গেলে ভালো। এখপ্ন আমরা খুবই চিন্তিত। আমি বাবার জন্য সকলের নিকট দোয়া চাইছি। ’ সোহেল রানার পারিবারিক নাম মাসুদ পারভেজ। চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে ‘সোহেল রানা’ নামে পরিচিত হন তিনি। ১৯৭২ সালে মাসুদ পারভেজ নামে চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেন। বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’ সিনেমার প্রযোজক হিসেবে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন তিনি। এটি পরিচালনা করেন চাষী নজরুল ইসলাম। ১৯৭৩ সালে কাজী আনোয়ার হোসেনের ‘মাসুদ রানা’র একটি গল্প অবলম্বনে ‘মাসুদ রানা’র নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন এবং একই সিনেমার মাধ্যমে তিনি মাসুদ পারভেজ নামে পরিচালক হিসেবেও যাত্রা শুরু করেন। এরপর অসংখ্য সিনেমা তিনি উপহার দিয়েছেন। দীর্ঘ চলচ্চিত্রজীবনে সোহেল রানা তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেছেন।