May 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, February 8th, 2022, 7:48 pm

হারের শঙ্কা কাটিয়ে আবাহনীর স্বস্তির ড্র

অনলাইন ডেস্ক :

একের পর এক সুযোগ পেয়ে নষ্ট করল আবাহনী। ফেডারেশন কাপ ও স্বাধীনতা কাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা দোরিয়েলতন রদ্রিগেজ নাসিমেন্তো পেনাল্টিও মিস করলেন। তাদের ব্যর্থতার মাঝে পুলিশ এফসি জাগাল আবাহনীর বিপক্ষে প্রথম জয়ের সম্ভাবনা। তবে যোগ করা সময়ে দলটির সে আশা ভেস্তে দিলেন দোরিয়েলতনই। মুন্সিগঞ্জের বীরশ্রেষ্ঠ ফ্লাইট লে: মতিউর রহমান স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার দুই দলের ম্যাচটি ১-১ ড্র হয়েছে। প্রথমে দেনিলসন রদ্রিগেজ রোলদাওয়ের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল পুলিশ। সব মিলিয়ে লিগে এ নিয়ে আবাহনীর সঙ্গে টানা দুই ম্যাচ ড্র করল পুলিশ। গত আসরে প্রথম দেখায় ১-০ গোলে হারলেও ফিরতি পর্বে তারা লিগের ছয়বারের চ্যাম্পিয়নদের রুখে দিয়েছিল ২-২ গোলে। চতুর্দশ মিনিটে বিপদ ডেকে আনতে বসেছিলেন আবাহনী গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল। সতীর্থের উদ্দেশে তার শটের সময় পা বাড়িয়েছিলেন সামনে থাকা পুলিশ এফসির আফগান ফরোয়ার্ড আমিরউদ্দিন শরিফিও। বল বাইরে দিয়ে গেলে বেঁচে যায় আবাহনী। পুলিশ গোলরক্ষক মোহাম্মদ নেহাল প্রথম পরীক্ষার মুখোমুখি হন ২৩তম মিনিটে। কলিনদ্রেসের ফ্রি কিকে মিলাদ শেখ সোলেমানির হেড আটকে দেন তিনি। আবাহনীর সুযোগ নষ্টের মিছিলও শুরু হয়ে যায়। সাত মিনিট পর দোরিয়েলতনের ক্রস ছোট বক্সে পেয়ে কলিনদ্রেস শট নেওয়ার আগেই কর্নারের বিনিময়ে বিপদমুক্ত করেন রাশেদুল ইসলাম মনি। ৩২তম মিনিটে রাকিব হোসেনের শট বক্সে পুলিশের ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার দানিলো অগাস্তোর হাতে লাগলে পেনাল্টির আবেদন করে আবাহনী। সাড়া মেলেনি রেফারির। ৪২তম মিনিটে জুয়েল রানাকে বক্সের ভেতরে আকিব রহমান ফাউল করলে পেনাল্টি পায় আবাহনী। কিন্তু দোরিয়েলতন ক্রসবারের উড়িয়ে মারেন! দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে সতীর্থের কাট ব্যাকে ইসানুর রহমানের হেড ফিরিয়ে আবাহনীর ত্রাতা সোহেল। ৫১তম মিনিটে নুরুল নাইম ফয়সালের ক্রস বক্সে পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে পোস্টের বাইরে মারেন দোরিয়েলতন। এমন সুযোগ নষ্ট করে যেন তার নিজেরই বিশ্বাসই হচ্ছিল না। ৬০তম মিনিটে সতীর্থের থ্রু পাস ধরে একটু দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া ইসানুরের শট আটকান সোহেল। সাত মিনিট পর জুয়েল হেডে জাল খুঁজে নিলেও অফসাইডের কারণে গোল হয়নি। ৭৬তম মিনিটে এগিয়ে যায় পুলিশ এফসি। ইসানুরের ক্রস সোলেমানি আটকাতে পারেননি। বক্সেই থাকা শরিফিও ঠিকঠাক শট নিতে পারেননি টুটুল হোসেন বাদশা গায়ের সঙ্গে সেঁটে থাকায়। ছুটে এসে বুলেট গতির কোনাকুনি শটে গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড দেনিলসন। আটকানোর কোনো সুযোগই পাননি সোহেল। দ্বিতীয়ার্ধে আট মিনিটের যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে কলিনদ্রেসের ক্রসে বক্সে ফাঁকায় থাকা দোরিয়েলতন হেডে সমতা ফেরান। শাপমোচনের বুনো উল্লাসে মাতেন এই ফরোয়ার্ড। হারের শঙ্কার মেঘ ঠেলে ড্রয়ের স্বস্তি ফিরে দলটির ডাগআউট। দিনের অন্য ম্যাচে শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রকে ৩-০ গোলে হারিয়ে লিগে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব। গতবারের রানার্সআপদের ২০তম মিনিটে এগিয়ে নেন সলোমন কিং। ৩৭তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুনের পর দ্বিতীয়ার্ধে তৃতীয় গোলটিও করেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড চিনেডু ম্যাথিউ। দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট গতবারের রানার্সআপ শেখ জামালের। দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট আবাহনীর।