October 6, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, January 17th, 2022, 8:20 pm

হার দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করল বাংলাদেশের যুবারা

অনলাইন ডেস্ক :

বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের ওপর চিরায়ত প্রত্যাশার চাপ থাকে সব সময়। সেই চাপটাই নিতে পারলেন না বাংলাদেশের যুবারা। সেন্ট কিটসে প্রথম ম্যাচেই ইংল্যান্ডের কাছে ৭ উইকেটে হারল রাকিবুল হাসানের দল। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩৫.২ ওভারে মাত্র ৯৭ রানেই গুটিয়ে যায় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। জবাবে ইংল্যান্ড লক্ষ্যে পৌঁছে যায় স্বাচ্ছন্দ্যেই, ২৫.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৪ রান জ্যাকব বেথেলের। একটি করে উইকেট রিপন ম-ল ও রাকিবুল হাসানের। ইংল্যান্ডের বোলারদের তোপে ১০ ওভারের আগেই ৮ রানে নেই বাংলাদেশের ৪ উইকেট! এই ধাক্কাটা সামলানোর প্রাণপণ চেষ্টা করছিলেন আইচ মোল্লা, মেহরব হাসান ও আব্দুল্লাহ আল মামুন। একটা পর্যায়ে স্কোর পৌঁছে ৬ উইকেটে ৫০ রানে। এরপর আবারও খেই হারানো। ৫০ থেকে ৫১Ñএই ১ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত রিপন ম-লের দৃঢ়তায় বাংলাদেশের ইনিংস শেষ হয় ৯৭ রানে। ৬ রানে ফাইন লেগে রিপনের সহজ ক্যাচ ছেড়েছিলেন জশুয়া বয়ডেন। তিনি জীবন না পেলে ৫৮ রানেও গুটিয়ে যেতে পারত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। শেষ উইকেটে নাঈমুর রহমানকে নিয়ে ৪৬ রানের জুটি গড়েন রিপন। নাঈমুর আউট হন ১১ রানে। অন্য প্রান্তে রিপন অপরাজিত ছিলেন ৪১ বলে ৩৩ রান করে। ১৭ বছরের বাঁহাতি পেসার জশুয়া বয়ডেনকেই সামলাতে পারেনি রাকিবুল হাসানের দল। ৯ ওভারে ৪ মেডেনসহ ১৬ রানে ৪ উইকেট তাঁর। দুই ওপেনার মাহফুজুল ইসলাম ও আরিফুল ইসলামকে উইকেটরক্ষক অ্যালেক্স হর্টনের ক্যাচ বানিয়ে ইংল্যান্ডকে দুর্দান্ত শুরু এনে দিয়েছিলেন বয়ডেনই। মাহফুজুল ৩ ও আরিফুল করেন ৪ রান। অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে নেপালের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করা প্রান্তিক নওরোজ নাবিল ০ রানে জেমস সেলসের বলে ক্যাচ দেন হর্টনকে। এরপর ১ রান করা মোহাম্মদ ফাহিম রান আউট হলে বিপদ বাড়ে বাংলাদেশের। আশিকুর জামান দুটি বাউন্ডারি মারলেও ৯ রানে ফেরেন থমাস এসপিনওয়ালের বলে। ২৪ বলে ১৪ করা মেহরব হাসানকেও ফেরান এসপিনওয়াল। ব্যর্থ অধিনায়ক রাকিবুল হাসানও। রানের খাতা খোলার আগেই ফেরেন তিনি। এরপর ১১ নম্বরে নামা পেসার রিপন ম-ল চড়াও হন ইংল্যান্ডের বোলারদের ওপর। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩৯ করেছিলেন তিনি। সেই প্রেরণাতেই দলের বিপদে খেললেন ৪১ বলে ৫ বাউন্ডারি ১ ছক্কায় ৩৩* রানের ইনিংস।