July 1, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, May 24th, 2022, 8:05 pm

৩৬৫ রানে অলআউট বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক :

দ্বিতীয় টেস্টে দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনটা ছিল শ্রীলঙ্কার। প্রথম সেশনে ৪ উইকেট তুলে বাংলাদেশকে দ্বিতীয় সেশনে অলআউট করেছে ৩৬৫ রানে। প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের গুটিয়ে দেওয়ার পর ব্যাট হাতেও লঙ্কানরা জবাব দিচ্ছে ভালোভাবে। তাতে সব মিলে দ্বিতীয় দিনটা হয়ে থাকলো সফরকারীদের। অবশ্য ওপেনিং জুটিতে ৯৫ রান যোগ করার পর মনে হচ্ছিল দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে অবিচ্ছিন্ন থেকেই বুঝি তারা দিনটা শেষ করতে যাচ্ছে। কিন্তু তৃতীয় সেশনের শেষ দিকে তাদের অস্বস্তিতে ফেলে দেন সাকিব। তার ঘূর্ণিতে পড়েছে দ্বিতীয় উইকেট। তার পরেও লঙ্কানরা ৪৬ ওভারে ২ উইকেটে ১৪৩ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে। পিছিয়ে আছে ২২২ রানে। শুরুর দারুণ জুটি ভাঙার পর দিমুথ করুনারত্নে-কুশল মেন্ডিস জমে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। তারা মিলে যোগ করেন ৪৪ রান। কিন্তু সাকিব শেষ দিকে এসে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে বিদায় দেন কুশল মেন্ডিসকে। ৪৯ বল খেলা লঙ্কান ব্যাটার করতে পারেন মাত্র ১১ রান। দিনের শেষভাগে এই ব্যাটার ফেরায় লঙ্কানরা আর ঝুঁকি নিতে চায়নি। পেসার কাসুন রাজিথাকে নাইটওয়াচম্যান বানিয়ে দিনটা নির্বিঘ্নে শেষ করেছে। অপরপ্রান্তে ৭০ রানে অপরাজিত আছেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। জীবন পাওয়া এই ব্যাটার ১২৭ বল খেলে দিন শেষ করেছেন। ১১ বল খেলা রাজিথা এখনও রানের খাতা খুলতে পারেননি। ৯ ওভারে ৩১ রানে একটি উইকেট নিয়েছেন এবাদত। সমান ওভারে ১৯ রান খরচ করে সাকিব নিয়েছেন একটি। প্রথম ইনিংসে দারুণ শুরু করেছিলেন দুই লঙ্কান ওপেনার। উদ্বোধনী জুটিতে তুলে ফেলে ৯৫ রান। ওশাডা ফার্নান্ডো অবশ্য প্রথম ওভারেই ফিরে যেতে পারতেন। খালেদ আহমেদের বল ব্যাটে লেগেছে ভেবে আম্পায়ার আঙুল তুলে দিলেও রিভিউ নেন লঙ্কান ব্যাটার। রিভিউতে দেখা যায় বল প্যাডে লেগে কিপারের গ্লাভসে জমা পড়েছে। ১৪.৪ ওভারে তাইজুলের বলে লেগ বিফোরের আবেদন উঠেছিল। এবারও ব্যাটার ওশাডা। আম্পায়ার আউট দেননি যদিও। বাংলাদেশ রিভিউ নিলে দেখা যায় বল স্টাম্পে আঘাত করলেও আম্পায়ার্স কলে বেঁচে গেছেন লঙ্কান ওপেনার। এই সুযোগে দ্রুত ব্যাট চালিয়ে তিনি পঞ্চম ফিফটি তুলে নিয়েছেন। সফরকারীদের চাপে ফেলবার মুহূর্তে সূবর্ণ সুযোগটি নষ্ট করেন সাকিব। ১৮তম ওভারে তার বলে ওশাডা ফিরতি ক্যাচ দিয়েছিলেন। কিন্তু সাকিব তা হাতেই জমাতে পারলেন না। চায়ের বিরতির পর তাকে গ্লাভসবন্দি করান এবাদত। বেশ কয়েক বার জীবন পাওয়া ওশাডা শেষ পর্যন্ত ফেরেন ৯১ বলে ৫১ রান করে। এক ওভার পর তাইজুলের বলে ফিরতে পারতেন অধিনায়ক করুনারতেœও। তাহলে লঙ্কানদের চাপে ফেলা যেত। কিন্তু শর্ট লেগে তার ক্যাচ উঠলেও সেটি লুফে নিতে পারেননি মাহমুদুল হাসান জয়। জীবন পাওয়ার পর ২৯তম ফিফটি তুলে নেন লঙ্কান অধিনায়ক। তার আগে টস জেতা বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়েছে ৩৬৫ রানে। গতকালকের মতো আজকের প্রথম সেশনেও আক্রমণ হানে লঙ্কান পেস বোলিং। তাছাড়া পুরোটা সময় লঙ্কানদের ভুগিয়েছে লিটন-মুশফিক জুটি। দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে লিটন দাস ফিরতেই বেশি দূর যায়নি বাংলাদেশের ইনিংস। দ্বিতীয় সেশনে কয়েক ওভার খেলার পর ১১৬.২ ওভারে গুটিয়ে গেছে স্বাগতিকদের ইনিংস। দ্বিতীয় দিনের সকালটা শুরুতেই নিজেদের করে নেয় শ্রীলঙ্কা। ২৮ ওভার বল করে ৮৪ রান দিয়েছে। বিনিময়ে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে লাঞ্চের আগেই বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসটা সমাপ্তির পথে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। ২৪৬ বলে ১৪১ রান করা লিটনকে ফিরিয়ে যার শুরুটা করেন কাসুন রাজিথা। তাতে ২৭২ রানের রেকর্ড গড়া ষষ্ঠ উইকেট জুটি ভাঙলে স্বাগতিকদের প্রতিরোধ বেশিক্ষণ টেকেনি। তবে লঙ্কানদের পুরোপুরি স্বস্তিও পেতে দেননি মুশফিকুর রহিম। অপরাজিত ইনিংস খেলে বাধা হয়ে ছিলেন অনেকক্ষণ। লাঞ্চ বিরতির পর ফিরে রান তুলতে থাকলেও সঙ্গী এবাদত টিকে থাকতে পারলেন না। দ্রুত রান নেওয়ার তাড়ায় রান আউট হতেই অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ৩৫৫ বলে ১৭৫ রানের নিখুঁত টেস্ট ইনিংস খেলে অপরাজিত থেকেছেন। লঙ্কানদের সেরা বোলার ছিলেন দুই পেসার কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্ডো। রাজিথা ৬৪ রানে নিয়েছেন ক্যারিয়ার সেরা ৫ উইকেট। আসিথা ৯৩ রানে নেন ৪টি।প্রবীণ জয়াবিক্রমা ৩৮ ওভার বল করলেও উইকেট পাননি কোনও।
সংক্ষিপ্ত স্কোর: দ্বিতীয় দিন শেষে
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ১১৬.২ ওভারে ৩৬৫ (মুশফিক ১৭৫*, লিটন ১৪১; রাজিথা ৫/৬৪, আসিথা ৪/৯৩)
শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংসে: ৪৬ ওভারে ১৪৩/২ (করুনারতেœ ৭০*, ওশাডা ৫৭; এবাদত ১/৩১, সাকিব ১/১৯)