June 12, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, May 24th, 2023, 8:22 pm

ঢাকায় ‘স্প্যানিশ-বাংলা’ ফুটবল অভিধান উন্মোচন

অনলাইন ডেস্ক :

লা লিগা ও বাংলাদেশে স্পেনের দূতাবাস, ইনস্তিতিউতো সার্ভান্তেস ও ক্যাথিড্রা ইন্দিতেক্স-এর সঙ্গে মিলে ঢাকায় ‘স্প্যানিশ-বাংলা’ ফুটবল অভিধান উন্মোচন করেছে। গত মঙ্গলবার স্প্যানিশ দূতাবাসে এই অভিধানটি উন্মোচন করা হয়। অনুষ্ঠানে, লা লিগা ভারতীয় উপমহাদেশে শক্তিশালী সংযোগ প্রসারের জন্য তাদের চলমান প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে বইটি হাজির করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ক্রীড়া ও যুব মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মহিউদ্দিন আহমেদ। অভিধানটি উন্মোচন করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের মাননীয় রাষ্ট্রদূত জনাব ফ্রান্সিস্কো দি আসিস বেনিতেজ সালাস, লা লিগার এ অঞ্চলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব হোসে আন্তোনিও ক্যাসাজা, ক্যাথিড্রা ইন্দিতেক্সের পরিচালক আমপারো পোর্তা ও দিল্লির ইনস্তিতিউতো সার্ভান্তেসের পরিচালক জনাব অস্কার পুজোল।

এশিয়ায় বাংলাদেশের ফুটবলের সমৃদ্ধ ইতিহাস এবং ফুটবলের জন্য ক্রমবর্ধমান আগ্রহের বিষয়টি মাথায় রেখে, এই অভিধান পাঠককে লা লিগা সান্তানদার এবং লা লিগা স্মার্টব্যাংক ক্লাবগুলো’র বিষয়ে সঠিক তথ্য প্রদান করবে। অভিধানটিতে খেলার নানাবিধ কর্মকা-, উল্লেখযোগ্য অর্জন ও জনপ্রিয় ফুটবল পরিভাষার অনুবাদ পাওয়া যাবে। সামাজিক উন্নয়ন ও ইতিবাচক পরিবর্তনের বাহন হিসেবে ফুটবলের সাহায্য কাজে লাগিয়ে, এই বই বাংলাদেশ ও স্পেনের জনগণের মধ্যে গভীর বোঝাপড়ার প্রসার ও যোগাযোগ জোরদারের উপায় করে দেবে। অনুষ্ঠানে ফ্রান্সিস্কো দি আসিস বেনিতেজ সালাস তার বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশে ফুটবলের বিপুল জনপ্রিয়তা এবং এর সঙ্গে জড়িয়ে থাকা আবেগকে গুরুত্ব দিয়ে আমাদের সম্পর্কের দৃঢ়তা গড়ে তুলতে হবে।

ফুটবলকে সাধারণ যোগসূত্র হিসেবে নিয়ে, এই উদ্যোগগুলো শুধু বিদ্যমান সম্পর্ককেই মজবুত করবে না, সেই সঙ্গে আমাদের দুই দেশের মধ্যকার বিকাশ, পারস্পরিক বোঝাপড়া ও মর্ম উপলব্ধিতে ভূমিকা রাখবে, খুলে দেবে সহযোগিতা ও অংশীদারীত্বের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের পথ।’ এছাড়া লা লিগা ইন্ডিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব হোসে আন্তোনিও ক্যাসাজা বলেন, ‘আমরা ভারতীয় উপমহাদেশে আমাদের রূপকল্প ও দৃঢ় অবস্থান গড়ে তুলেছি, এ ছাড়া লা লিগার জন্য বাংলাদেশ খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দুই দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া সম্পর্ককে বিস্তৃত, শক্তিশালী ও গভীর করতে ফুটবলের জন্য থাকা অভিন্ন আবেগকে ভিত্তি হিসেবে ব্যবহারে আমাদের প্রচেষ্টা নিবদ্ধ রয়েছে। ভবিষ্যতে আমরা বিশ্বাস করি এই অভিধান শুধু ভাষাগত বাধাই কমাবে না, সেই সঙ্গে বিভিন্ন খাতে অংশীদারীত্বের সূচনা করবে।’