December 7, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, February 15th, 2022, 8:34 pm

বিক্ষোভ দমাতে কানাডায় প্রথমবারের মতো জরুরি আইন জারি

অনলাইন ডেস্ক :

কোভিড বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে চলমান ব্যাপক বিক্ষোভ ও অবরোধ মোকাবিলায় কানাডার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো জরুরি আইন প্রয়োগ করার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। গত সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রুডো বলেন, এটা এখন স্পষ্ট যে আইন প্রয়োগকারীদের কার্যকরভাবে আইন প্রয়োগ করার ক্ষমতার জন্য গুরুতর চ্যালেঞ্জ রয়েছে। তিনি বলেন, সরকারি নীতি নিয়ে মতবিরোধে এটা আর বৈধ প্রতিবাদ নয়। এটা এখন একটা বেআইনি কর্মকা-। মানুষের ঘরে ফেরার সময় এসেছে। ট্রুডো আরো বলেন, ভৌগলিকভাবে লক্ষ্যবস্তু এবং হুমকিগুলোর যৌক্তিক এবং আনুপাতিক মোকাবিলার জন্য এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। যেখানে জনসমাবেশ অবৈধ এবং বিপজ্জনক সেখানে অবরোধ এবং দখলের মতো কর্মকা- ঠেকাতে জরুরি আইনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নজিরবিহনী ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারবে। তিনি বলেন, রয়েল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ পৌরসভার আইন এবং প্রাদেশিক অপরাধের ক্ষেত্রেও এই আইনের প্রয়োগ করতে পারবে। কানাডিয়ানদের নিরাপদ রাখা, মানুষের চাকরি রক্ষা এবং আমাদের প্রতিষ্ঠানের প্রতি আস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য এটা করা হয়েছে। এদিকে জরুরি আইন জারির মাধ্যমে সাময়িক সময়ের জন্য সাধারণ নাগরিকদের চলাফেরায় নিষেধাজ্ঞা আসতে পারে। এ ছাড়া বিক্ষোভকারীদের আর্থিকভাবে সহায়তাকারীরাও নানাবিধ নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে পারে। দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলা এই বিক্ষোভে অস্থির পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এর আগে কানাডার রাজধানী অটোয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন শহরটির মেয়র জিম ওয়াটসন। তিনি বলেন, দিনকে দিন পুলিশের চেয়ে বিক্ষোভকারীর সংখ্যা ছাড়িয়ে যাওয়ায় শহরটি ‘পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে’ চলে গেছে। তিনি আরও বলেন, চলমান বিক্ষোভ শহরের বাসিন্দাদের নিরাপত্তা এবং সুরক্ষার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ট্রাকচালকদের জন্য কোভিড টিকা বাধ্যতামূলক করা ও বিভিন্ন বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে ‘ফ্রিডম কনভয়’ নামের এই বিক্ষোভ শুরু হয়। এই বিক্ষোভের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সীমান্ত ক্রসিংয়ে যান চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। অটোয়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রুডো জানান, জরুরি এই আইন অল্প সময়ের জন্য জারি থাকবে। ১৯৮৮ সালে এই আইন পাস হয়। যখন কোনো জরুরি এবং জটিল পরিস্থিতি দেখা যায় যা কানাডার অন্য কোনো আইনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। তখনই জাতীয় জরুরি অবস্থা জারি করার পক্ষে এই আইন। সূত্র: সিএনএন