November 26, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, November 2nd, 2022, 8:59 pm

রাজনীতির সঙ্গে পুলিশের কোনো সম্পর্ক থাকবে না, ডিএমপির নীতিই পুলিশ ও রাজনীতির জন্য সঠিক নীতি

এডিটরিয়াল ডেস্ক :

“রাজনীতির সঙ্গে পুলিশের কোনো সম্পর্ক নেই। রাজনীতি নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই”। এমনটাই মন্তব্য করেছেন নবনিযুক্ত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক। গত সোমবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে কমিশনার’স মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার এ কথা বলেন। গত ২৯ অক্টোবর কমিশনার দায়িত্ব নেওয়ার পর এটাই ছিল তার প্রথম অনুষ্ঠান।

তিনি আরও বলেন, সাধারণ মানুষের কাছে ঝামেলামুক্ত সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তারা ডিউটি অফিসার, সেন্ট্রি এবং অন্যান্য কর্মীদের নজরদারি করার জন্য থানায় সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করবেন। পুলিশ স্টেশনগুলি মানুষের কাছে পুলিশের সহায়তা চাওয়ার প্রথম এবং প্রধান পয়েন্ট, তবে অভিযোগ রয়েছে যে থানায় প্রবেশের সময় তারা হয়রানির শিকার হন। তিনি আরও বলেন, সব রাজনৈতিক দল এখন সমাবেশ ও মিছিল করতে পারবে এবং পুলিশ তাদের সাহায্য করবে যতক্ষণ না তারা রাস্তায় গাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করে।

নতুন ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, কোনো ফৌজদারি অপরাধ হলে পুলিশ তা কঠোরভাবে মোকাবেলা করবে। জনগণ দীর্ঘদিন ধরে পুলিশের এমন ভূমিকা দাবি করে আসছে। কিন্তু আমরা আবার একটা কথা বলা প্রয়োজন মনে করি যে, রাজনীতিতে সব অপরাধী পাওয়া যায়। পুলিশ এবং অন্যান্য অনেক সরকারি কর্মকর্তার জন্য রাজনীতিকে অপরাধী করা হয়েছে। রাজনীতিতে সহিংসতা প্রায় অসম্ভব হবে।

রাজনৈতিক দলগুলোর রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেবে না এমন পদক্ষেপকে আমরা স্বাগত জানাই। সরকারের রাজনীতির জন্য পুলিশের ব্যাপক অপব্যবহারের মধ্যে এটি সাহসী বক্তব্য। গত নির্বাচনে জয় ছিল পুলিশের ডাকাতি। পুলিশের ভাবমূর্তি জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বিপজ্জনকভাবে ক্ষুন্ন হয়েছে কিছু উচ্চপদস্থ দুর্নীতিবাজ পুলিশদের দ্বারা।
আমরা সব সময় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের কাছে আবেদন জানিয়ে আসছি জনগণকে তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত না করে শান্তিপূর্ণভাবে রাজনীতি করতে।

বিরোধী দল দমন বা নির্বাচনী কারচুপি সংগঠিত করার জন্য দলীয় রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়া পুলিশের দায়িত্ব নয়। এই ধরনের ভূমিকা বৃহৎ এবং সুশিক্ষিত পুলিশ বাহিনীর জন্য ধ্বংসাত্মক।