June 13, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, May 4th, 2023, 8:40 pm

হারের বৃত্তে মোহামেডান

অনলাইন ডেস্ক :

সুপার লিগে টানা দুই ম্যাচে জয়হীন ঐতিহ্যবাহী ক্লাব মোহামেডান। প্রথম ম্যাচে আবাহনীর বিপক্ষে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে শেখ জামালের বিপক্ষেও হারের তিক্ত স্বাদ পেয়েছে তারা। শেখ জামালের দেওয়া ২৭৭ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১৯১ রানে থেমেছে মোহামেডানের ইনিংস। ফলে ভি জয়দেবন সিস্টেমে ৮৫ রানের জয় পেয়েছে শেখ জামাল ধানম-ি। বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে আগে ব্যাটিং করে শেখ জামাল মোহামেডানকে ২৬০ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল। কিন্তু ডাকওয়ার্থ লুইসের মতো (ডিএল) ভি জয়দেবন সিস্টেমে (ভিজেএস) মোহামেডানের নতুন লক্ষ্য নির্ধারিত হয় ২৭৭।

কঠিন লক্ষ্যে খেলতে নেমে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটির শুরুটাই ছিল বাজে। রানের খাতা না খুলেই আউট হয়েছেন মোহামেডানের ওপেনার আরিফুল ইসলাম। এরপর ইমরুল কায়েস ও মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন মিলে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও ম্যাচ জয়ের জন্য সেটি যথেষ্ট ছিল না। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা মোহামেডান শেষ পর্যন্ত ৪০.৫ ওভারে ১৯১ রানে অলআউট হয়েছে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪০ রান আসে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাট থেকে। আরিফুল হক খেলেছেন ৩২ রানের ইনিংস। শেখ জামালের বোলারদের মধ্যে তাইবুর রহমান ২৪ রান খরচায় চারটি উইকেট শিকার করেছেন।

এ ছাড়া আরিফ আহমেদ তিনটি এবং পারভেজ রাসূল দুটি উইকেট নিয়েছেন। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা একেবারেই খারাপ ছিল না শেখ জামালের। সাইফ হাসান ও সৈকত আলী মিলে ৬৬ রানের জুটি গড়েছেন। সাইফ ৬৫ বলে ২৫ রান করে আউট হলে ভাঙে জুটি। ফজলে মাহমুদের সঙ্গে তার পর ৩০ রানের জুটি গড়ে আউট হন সৈকত আলী। সাজঘরে ফেরার আগে খেলেছেন ৭০ বলে ৫০ রানের ইনিংস। দলীয় ৯৬ রানে সৈকত আলী ফিরলেও সমস্যা হয়নি শেখ জামালের। নুরুল হাসান সোহান ও ফজলে রাব্বি মিলে ১৫৫ রানের জুটি গড়ে দলের স্কোর আড়াইশোতে নিয়ে গেছেন।

তবে দু’জনের কেউই তিন অঙ্কের ঘরে যেতে পারেননি। ৬০ বলে ৩ চার ও ৪ ছক্কায় ৭০ রানের ইনিংস খেলে আউট হয়েছেন সোহান। রাব্বি ৯৩ রানে অপরাজিত ছিলেন। শেখ জামালের এই ব্যাটার ৮৬ বলে ৬ চার ও ৫ ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজিয়েছেন। সবমিলিয়ে শেখ জামাল নির্ধারিত ৪৭ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৫৯ রান করেছে। মোহামেডানের বোলারদের মধ্যে কামিন্দু মেন্ডিস দুটি এবং সৌম্য সরকার একটি উইকেট নিয়েছেন।